Breaking News

ফার্মে বায়োগ্যাস করলে কি কি সুবিধা ও খরচ কেমন

#আপনারা যারা খামার করেছেন/ গ্রামের বাসায় ৩/৪ টা গরু / মুরগি পালন করেন। তাদের নিয়ে আমি কিছু কথা বলবো। আপনারা যারা খামার করেছেন বা করতে চাইছেন তাদের জন্য বায়োগ্যাস একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। আপনার খামাদের গরু আছে অনেক কিন্তু আপনে বায়োগ্যাস প্লান্ট করেন নাই, আমি তাদের কে বলবো আপনারা বায়োগ্যাস প্লান্ট করেন, কারন বায়োগ্যাস এর কোন বিকল্প নাই।

###আমি কিছু খামারিদের কিছু প্রশ্ন করবো ঊওর দিতে পারবেন—————-
* আপনে এখন গরুর গবর কি করছেন?
*আপনে খামারে কি ভাবে গরুর পানি গরম করছেন?
*আপনে খামারে গরুর খাবার কিভাবে রান্না করছেন?
*আপনে এখন গরুর ঘাসে কি সার দিতেছেন?
*আপনে এখন খামারে জেনারেটর ব্যবহার করছেন?
*আপনে খামারে পরিবেশ কি ঠিক আছে?
#এগুলো প্রাশ্নের একটাই উওর বায়োগ্যাস প্লান্ট করেন নিজের খরচ নিজে কমান। আপনে একটা বায়োগ্যাস করেন নিজের খামারে গরুর গবর নষ্ট হবে না কজে লাগবে জৈব সার পাবেন তা দিয়ে নিজের জমিতে ও খামারের ঘাস জমি ও আবাদি জমি জৈব সার দিন।ও জৈব সার অন্যনের কছে বিক্রায় করেন ও মাছের খাবার হিসেবে ব্যবহার করেন।
আপনার খামারে গরুর পানি গরম করেন ও গরুর খাবার রান্না করেন পাশাপাশি বাসা বাড়িতে রান্নার করার জন্য নিজে ব্যবহার কিরেন ও বাসাবাড়ি ভাড়া দেন তাতে প্রতি মাসে বারতি ইনকাম করা যাবে।
বায়োগ্যাস দিয়ে জেনারেটর চালালে আপনার বিদুৎবিল কমান। বায়োগ্যাস করলে আপনার খামারের পরিবেশ ও ঠিক থাকবে। তাই সবাই কে পরামর্শ দিবো সবাই একটি করে বায়োগ্যাস প্লান্ট করেন।

##যাদের বাসায় ৩/৪ গরু পালন করেন তাদের কে বলবো।

#আপনার বাসায় মা/ বোন রা অনেক কষ্ট করে আমাদের কে রান্না করে খাওয়ায়। তারা প্রতিদিন গরু লালন পালন করে গবর শুখায়ে রান্না করে করে। প্রাতি দিন গবর তাদের কে লাধতে হবে, রান্না করতে হবে। মা বোনে রা ধুয়া কালিরা মাঝে প্রাতিদিন রান্না করে।তাদের কে একটু কষ্ট থেকে রক্ষা করা আপনার দায়িত্ব।আপনে পারেন আপনার বাসায় একটা বায়োগ্যাস প্লান্ট করে।আমি সবাইকে বলবো আপনার বাসায় একটি করে বায়োগ্যাস প্লান্ট করতে।
আপনার বাসার পরিবেশ ও রক্ষা পাবে ইনশাআল্লাহ।
যাদের বাসায় লিয়ার মুরগির খামার আছে তাদের কে বলবো আপনারা সবাই একটি করে বায়োগ্যাস প্লান্ট করেন।আপনার খামাদের পরিবেশ ও জেনারেট দিয়ে আপনার খামারে বাতি ফ্যান চালান।

##ফ্যামিলি সাইজের কিছু প্লান্ট এর আনুমানিক খরচ ও চুলার ধারন—+———–

২.০ঘনমিটার-গরু লাগবে ৩/৪টা-মুরগি লাগিবে-২৫০ পিচ- চুলা জলবে-১/২ টা- আনুমানিক খরচ-৩২/৩৩০০০/-
২.৪ঘনমিটার-গরু লাগবে ৫/৬টা-মুরগি লাগিবে-৪৫০ পিচ- চুলা জলবে-২/৩ টা- আনুমানিক খরচ-৩৬/৩৭০০০/-
৩.২ঘনমিটার-গরু লাগবে ৭/৮টা-মুরগি লাগিবে-৫৫০ পিচ- চুলা জলবে-৩/৪ টা-আনুমানিক খরচ-৪২/৪৩০০০/-
৪.৮ঘনমিটার-গরু লাগবে ৮/১০টা-মুরগি লাগিবে-৭৫০ পিচ- চুলা জলবে-৪/৫ টা- আনুমানিক খরচ ৫০/৫২০০০/- হাজার টাকা।

##ব্যানিজিক সাইজের কিছু প্লান্ট এর সাইজ————————–
৭.৫ ঘনমিটার।
১০ ঘনমিটার।
১২.৫ ঘনমিটার।
১৫ ঘনমিটার।
২০ ঘনমিটার।
২৫ ঘনমিটার।
৩০ ঘনমিটার।
৪৫ ঘনমিটার।
৫০ ঘনমিটার।
৭৫ ঘনমিটার।
১০০ ঘনমিটার।
১২৫ ঘনমিটার।
১৫০ ঘনমিটার।
২০০ ঘনমিটার।

যোগাযোগ ও পরামর্শে জন্য যোগাযোগ করতে পারেন।
Md Shariful Islam
E-mail – ishariful692@gmail.com
Mobile

পাঠ ২

বায়োগ্যাস

গরু খামারী ও লেয়ার মুরগী খামারী ভাইদের জন্য সুখবর। যাদের কমপক্ষে ৩-৪টা গরু অথবা কমপক্ষে ৩০০-৫০০ লেয়ার মুরগী আছে তারা ইচ্ছে করলেই একটি বায়োগ্যাস প্লান্ট স্থাপন করতে পারেন এবং বায়োগ্যাস দিয়ে রান্না সহ জেনারেটর ও চালাতে পারেন আর জেনারেটরের জালানি খরচ ও সাশ্রয় করতে পারেন। তাই দেরি না করে এখনি আমাদের সহযোগিতা নিন কারন বায়োগ্যাস করার এখনি উপযুক্ত সময়।একটি বায়োগ্যাস প্লান্ট স্থাপন করে আপনি নিজে সুবিধা ভোগ করুন আর পরিবেশকেও পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখুন আর রোগ বালাই থেকে আপনি নিজে বাচুন আর খামারকে ও রক্ষা করুব।

নবায়নযোগ্য শক্তির উৎস হিসেবে বায়োগ্যাসের অনেক ধরনের সুবিধা রয়েছে। যেমন[৬]–
অল্প জায়গায় এই প্লান্ট তৈরি করা যায়৷
এই প্লান্ট অনেকদিন টিকে থাকে এবং কাজ করে৷
আবর্জনা ও দুর্গন্ধমুক্ত স্বাস্থ্যসম্মত পরিবেশ গড়ে ওঠে৷
উপাদানগুলো পঁচে দুর্গন্ধ ছড়ায় না৷ মশা-মাছি জণ্মায় না৷
রাঁধুনীর শারীরিক ধকল কমে৷
জমির জন্য উন্নতমানের সার পাওয়া যায়৷
গ্রামের জীবনযাত্রায় আধুনিকতা আসে৷
বায়োগ্যাসের বর্জ্য জৈবসার হিসেবে ব্যবহার করা যায়৷
জ্বালানির জন্য গাছপালার উপর চাপ কম পড়ে ।
বায়োগ্যাসের কারণে বাড়িতে গবাদিপশুর খামার গড়তে উৎসাহিত হয় ।
বায়োগ্যাসের বর্জ্য মাছের খাদ্য হিসেবে ব্যবহার করা যার ।
বায়োগ্যাস ব্যবহার করলে গ্রীনহাউজ গ্যাসের স্তর ক্ষয় কম হয় ।

তাই আমরা সাইফ বায়োগ্যাস প্রোগ্রাম ৫ বছরের গ্যারেন্টি ও ৩ বছরের ফ্রি সার্ভিসিং সহকারে করে দিচ্ছি ছোট বড় বিভিন্ন সাইজের বায়োগ্যাস।
তাই আজই আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন।

বায়োগ্যাস প্লান্ট নির্মাণ খরচ ও জায়গার পরিমাণ :

১।২.০ ঘনমিটার ১চুলা। প্রতিদিন ৫-৬ ঘন্টা জ্বলবে,২০০-৩০০মুরগীর বিষ্টা অথবা ২৫-৪০কেজি গোবর। খরচ ৩০০০০+ জায়গা১০/২০ফিট

২। ২.৪ ঘনমিটার ২চুলা। প্রতি চুলা ৩ঘন্টা করে জ্বলবে, ৩০০-৪০০মুরগীর বিষ্টা অথবা গোবর প্রতিদিন ৪০-৫৫ কেজি,খরচ ৩৫০০০+/-, জায়গা ১০/২১ ফিট।

৩। ৩.২ ঘনমিটার চুলা ৩টি। প্রতি চুলা ৪ঘন্টা করে জ্বলবে,৫০০-৭০০মুরগীর বিষ্টা অথবা গোবর প্রতিদিন ৬০-৮০ কেজি, খরচ ৪২০০০+/-
-,জায়গা১১/২২ ফিট।

৪। ৪.৮ ঘনমিটার চুলা ৪-৫টি। প্রতি চুলা ৪ ঘন্টা করে জ্বলবে,১০০০-২০০০মুরগীর বিষ্টা অথবা গোবর প্রতিদিন ১০০-১৫০কেজি, খরচ ৫০০০০+/- জায়গা ১২/২৩ ফিট।

মিজানুর রহমান
মোবাইল :০১৭২১০১২১৮৯/০১৯২০৪২২৫৩৫
বায়োগ্যাস ইঞ্জিনিয়ার
সাইফ পাওয়ারটেক লি:

গরু খামারী ও লেয়ার মুরগী খামারী ভাইদের জন্য সুখবর। যাদের কমপক্ষে ৩-৪টা গরু অথবা কমপক্ষে ৩০০-৫০০ লেয়ার মুরগী আছে তারা ইচ্ছে করলেই একটি বায়োগ্যাস প্লান্ট স্থাপন করতে পারেন এবং বায়োগ্যাস দিয়ে রান্না সহ জেনারেটর ও চালাতে পারেন আর জেনারেটরের জালানি খরচ ও সাশ্রয় করতে পারেন।

তাই দেরি না করে এখনি আমাদের সহযোগিতা নিন কারন বায়োগ্যাস করার এখনি উপযুক্ত সময়।

একটি বায়োগ্যাস প্লান্ট স্থাপন করে আপনি নিজে সুবিধা ভোগ করুন আর পরিবেশকেও পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখুন আর রোগ বালাই থেকে আপনি নিজে বাচুন আর খামারকে ও রক্ষা করুব।

নবায়নযোগ্য শক্তির উৎস হিসেবে বায়োগ্যাসের অনেক ধরনের সুবিধা রয়েছে। যেমন[৬]–
অল্প জায়গায় এই প্লান্ট তৈরি করা যায়৷
এই প্লান্ট অনেকদিন টিকে থাকে এবং কাজ করে৷
আবর্জনা ও দুর্গন্ধমুক্ত স্বাস্থ্যসম্মত পরিবেশ গড়ে ওঠে৷
উপাদানগুলো পঁচে দুর্গন্ধ ছড়ায় না৷ মশা-মাছি জণ্মায় না৷
রাঁধুনীর শারীরিক ধকল কমে৷
জমির জন্য উন্নতমানের সার পাওয়া যায়৷
গ্রামের জীবনযাত্রায় আধুনিকতা আসে৷
বায়োগ্যাসের বর্জ্য জৈবসার হিসেবে ব্যবহার করা যায়৷
জ্বালানির জন্য গাছপালার উপর চাপ কম পড়ে ।
বায়োগ্যাসের কারণে বাড়িতে গবাদিপশুর খামার গড়তে উৎসাহিত হয় ।
বায়োগ্যাসের বর্জ্য মাছের খাদ্য হিসেবে ব্যবহার করা যার ।
বায়োগ্যাস ব্যবহার করলে গ্রীনহাউজ গ্যাসের স্তর ক্ষয় কম হয় ।

তাই আমরা সাইফ বায়োগ্যাস প্রোগ্রাম ৫ বছরের গ্যারেন্টি ও ৩ বছরের ফ্রি সার্ভিসিং সহকারে করে দিচ্ছি ছোট বড় বিভিন্ন সাইজের বায়োগ্যাস।
তাই আজই আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন।

বায়োগ্যাস প্লান্ট নির্মাণ খরচ ও জায়গার পরিমাণ :

১।২.০ ঘনমিটার ১চুলা। প্রতিদিন ৫-৬ ঘন্টা জ্বলবে,২০০-৩০০মুরগীর বিষ্টা অথবা ২৫-৪০কেজি গোবর। খরচ ৩০০০০+ জায়গা১০/২০ফিট

২। ২.৪ ঘনমিটার ২চুলা। প্রতি চুলা ৩ঘন্টা করে জ্বলবে, ৩০০-৪০০মুরগীর বিষ্টা অথবা গোবর প্রতিদিন ৪০-৫৫ কেজি,খরচ ৩৫০০০+/-, জায়গা ১০/২১ ফিট।

৩। ৩.২ ঘনমিটার চুলা ৩টি। প্রতি চুলা ৪ঘন্টা করে জ্বলবে,৫০০-৭০০মুরগীর বিষ্টা অথবা গোবর প্রতিদিন ৬০-৮০ কেজি, খরচ ৪২০০০+/-
-,জায়গা১১/২২ ফিট।

৪। ৪.৮ ঘনমিটার চুলা ৪-৫টি। প্রতি চুলা ৪ ঘন্টা করে জ্বলবে,১০০০-২০০০মুরগীর বিষ্টা অথবা গোবর প্রতিদিন ১০০-১৫০কেজি, খরচ ৫০০০০+/- জায়গা ১২/২৩ ফিট।

মিজানুর রহমান
মোবাইল :০১৭২১০১২১৮৯/০১৯২০৪২২৫৩৫
বায়োগ্যাস ইঞ্জিনিয়ার
সাইফ পাওয়ারটেক লি:


01759-552608
01836-792757

Please follow and like us:

About admin

Check Also

টিকা ও ওষুধের ব্যবহার পদ্ধতি (এম এ ইসলাম)

টিকা ও ওষুধের ব্যবহার পদ্ধতি  টিকা ও ওষুধের সঠিক ব্যবহার রোগপ্রতিরোধ ও নিরাময় নিশ্চিত করে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Translate »
error: Content is protected !!