টিপস ২৬

বয়স বাড়ার সাথে সাথে ডিমের খোসা পাতলা হয় কারণ ডিমের সাইজ বড় হলেও ক্যালসিয়ামের পরিমাণ বডিতে কমতে থাকে।

স্টেস(ভয়,শব্দ) পড়লে খোসা পাতলা ডিম পাড়ে

লেয়ার ১ম ডিম পাড়ার সময় খোসা পাতলা ডিম পাড়ে।

মেথিওনিন কিডনিতে এসিডিফায়ার হিসাবে কাজ করে

প্যারেন্ট থেকে বাচ্চাতে আই জি এম এন্টিবডি আসে যা দ্রুত শেষ হয়ে যায়।এক মাত্র হিউমোরাল এন্টিবডি বাচ্চাতে আসে সেলোলার এন্টবডি আসে না।

আই বির ক্ষেত্রে ৩০% এন্টিবডি আসে কিন্তু ফিল্ডের ভ্যারিয়েন্ট স্টেইনের কারণে  অতি দ্রুত কমে যায়।

কোন লেয়ারে যদি টিকা না দেয়া থাকে বা ইনফেকশন না হয় তাহলে টাইটার টেস্ট করলে টাইটার টেস্টে কিছুই পাওয়া যাবে না।

একেক মুরগির ক্যালসিয়ামের চাহিদা একেক রকম তাই ক্যালসিয়াম বা ঝিনুক চূর্ণ আলাদা ভাবে দেয়া উচিত খাবারের সাথে দিলে খাবারের রুচি কমে যায়।

ক্যালসিয়ামের সাথে ভিনেগার দিলে ক্যালসিয়ামের শোষণ বেড়ে যায়।

ম্যাশ ফিডের আর্দ্রতা ১৩% আর পিলেট ফিডের আর্দ্রতা ১৪-১৫%।আর্দ্রতা কম হলে ডাইজেস্টিবিলিটি কমে যায়।আর্দ্রতা কম হলে খাবার নস্ট হয়,ধূলা বেশি হয়।ডাস্টিনেস হলে মাইকোপ্লাজমা বেশি হয়।

খাবারে এসিডিফায়ার প্রপায়োনিক,বিউট্রারিক এসিড,সাইট্রিক এসিড দিলে পি এইচ ৫-৫.৫% থাকে।নরমালি খাবার এল্কালাইন হয়(সোডা দেয়ার কারণে)

আন স্যাসুরেটেড ফ্যাটি এসিড রাইস ব্রান অয়েল,ফ্যাক্স সিড,এটাতে লিনোলেতিক ও লিনোলেনিক এসিড থাকে।এতে এনার্জি বেশি থাকে।

স্যাসুরেটেড ফ্যাটি এসিড টালো (পাল্মিক ও স্টিয়ারিক এসিড।

ফ্রি ফ্যাটি এসিড ৫% এর বেশি হলে র‍্যান্সিডিটি হয়।অক্সিডেটিভ র‍্যান্সিডিটি যা ফ্রি  র‍্যাডিকেল রিলিজ করে এবং কলিব্যাসিলোসিস করে।

সয়াবিন তেলে সবচেয়ে বেশি ফ্রি ফ্যাটি এসিড থাকে।

৭০% সয়াবিন তেলে আর ৩০% টালোতে

পাম্ব অয়েল ২০% টারবোলা অয়েল ২০% আর সয়াবিন তেল ৬০%

সান ফ্লাওয়ার তেলে ৯৩০০ কিলোক্যালরী

কটন সিডে ও ট্যালো   ৭৮০০কিলো

পাম্ব তেলে ৭৫০০,রাইস ব্রান তেলে ৮২০০কিলো এই ২টিতে এন্টি অক্সিডেন্ট থাকায় ফ্রি ফ্যাটি এসিড কম হয় বা দেরিতে হয়।

সয়াবিন তেলে ৯০০০

ভারতে প্রায় ২কোটি প্যারেন্ট আছে আর বাচ্চা ২২কোটি,লেয়ার ৩৩কোটি,

ফাংগাস বৃদ্ধির জন্য উপযুক্ত পরিবেশঃ

তাপমাত্রা ২৫ডিগ্রি

আর্দ্রতা ৭০%  এর বেশি

খাবারের আর্দ্রতা ১৪% এর বেশি

পি এইচ ৫.৫ এর বেশি

ডর্বে এক্সাসেলোলার আর্দ্রতা তাকে আর ভুট্রায় ইন্টাসেলোলার আর্দ্রতা থাকে।

ভুট্রা,গাউন্ড নাট কেক আর ডর্ব বেশি ফাংগাস হয়।

আই বি ও এন ডি ভাইরাস ডিমের খোসা ভেদ করে ভিতরের যেতে পারে।

এন ডিঃHamorrhage of gizzard epithelium remarkable.The mucous coat is oedematous,covered with thick mucus and mottled with haemorrhage varying  from single to multiple.sometime join of oesophagus or gizzard.

এন ডি ভাইরাস ফ্রিজে অনির্সিস্ট সময় ধরে টিকে থাকে।

রানিখেতে ব্লাডি ডায়রিয়া হতে পারে।

টাইফয়েডের ক্ষেত্রে ৪দিনের মদ্যে লক্ষণ দেখা যাবে আর ২ সপ্তাহের পর থেকে মারা যাবে।

টাইফয়েড হলে এন্টিবায়োটিক দিয়ে চিকিৎসা করা যাবে কিন্তু ১০০% মুক্ত হওয়া যায় না।সেই জন্য সারা পৃথিবীতে দেখা যায়

মুরগির পালক পড়ার কারণ

Preening:লেজের কাছে অয়েল গ্রন্থি আছে যেখান থেকে তেল বের করে যা দিয়ে পালক কে ভেজা থকে রক্ষা করে। সূর্য থেকে ভিটামিন ডি তৈরিতে লাজে লাগে।

মোল্টিংঃএই সময় ঝুটি ফ্যাকাশে হয়ে যায়,খাবারে ২০% প্রোটিন দেয়া উচিত এই সময়।

ব্রুডিনেসঃ

এই সময় বুকের পালক থেকে পালক নিয়ে বাসা তৈরি করে এবং বুকের চামডার সাথে ডিম কে আটকে রেখে তাপ দেয়।

Bullying:

মুরগি নতুন,অসুস্থ,ছোট,ভিন্ন কালারের মুরগিকে ঠোকর দেয়।

স্টেসঃ

প্রোটিনের ঘাটতি

খাবারের পরিবর্তন

প্যারসাইট ও উকুন

Vent Gleet:

ফাংগাল ডিজিজ যা ভেন্টে ইনফেকশন করে ,এতে ভেন্টের পালক পড়ে যায়।

ভিটামিনের ঘাটতিঃ

ভিটামিন এ,ডাইজেস্টিভ,ইউরিনারী,রিপ্রডাক্টিভ ও রেস্পিরেটরী সিস্টেমেঢ় জন্য দরকার।

র‍্যান্সিড ফ্যাট অক্সিডাইজ হয়ে এ এর ঘাটতি হয়।

নিওমাইসিন ভিটামিন এ এর শোষণে বাধা দেয়।

চিজের মত বস্তু ১ বা ২ চোখে দেহা যায়,শুকিয়ে যায়

চোখের পাতা জোড়া লেগে যায়।

গলা,নাক ,চোখ থেকে ডীজ চার্জ বের হয়।

ভিটামিন ডি

ওস্টিওম্যালাসিয়া (কেজ লেয়ারফ্যাটিভ )

ভিটামিন ইঃ

এনসেফালোম্যালাসিয়া(ব্রেই নরম হয়),ক্রেসি চিকস ডিজিজ।

১৫-৩০ দিনে হয়।

রিপ্রডাক্টিভ,নার্ভাস মাস্কুলার সিস্টেমের জন্য দরকার

ভিটামিন এ লিনোলেনিক এসিড,ডি৩ কে রক্ষা করে,

তাপে নস্ট হয়।

ভিটামিন ই এর ঘাটতির সাথে রানিক্ষেত,বি১ এর ঘাটতি ও এভিয়ান এন সেফালোমায়েলাইটিসের মিল আছে।

ভিটামিন কে এর ঘাটতি হলে প্রথম্বিন তৈরি হতে পারে না।

ওয়াটার সলুবল ভিটামিন

বি১ এর ঘাটতি হলে বাচ্চা নার্ভাস্নেস হয়,পায়ে সমস্যা হয় ,চলাফেরার অ সংগতি,স্টার গেজিং কারণ (paralysis of anterior muscles of neck)

প্যারালাইসি (পলিনিউরাইটিস)

বি২ এর ঘাটতি হলে মেরেক্সের মত প্রিফেরলা নার্ভ মোটা হয়ে যায়।

বি২,ই,কে এর ঘাটতি হলে এম্বায়োনিক ডেথ হয়।

কার্ল টো প্যারালাইসি হয়

টার্কির ডার্মাটাইটিস হয়।চিকেনের মাসল এট্রফি হয়।

Charcoal(Wood ash)

এটা Suffocate parasites as mites,fleas,ticks.

It acts as laxative,detoxifier and flushing out internal worms.

চারকলে ক্যালসিয়াম,প্টাসিয়াম,ম্যাগ্নেসিয়াম,ফসফরাস।তবে ক্যাসিয়াম বেশি থাকে।

খাবারে ১% দেয়া যায় এতে ডিম বাড়ে,ডিম বেশি দিন পাড়ে,ফিসিসের গন্ধ দূর করে।

এন্টি ব্যাক্টেরিয়াল ও এন্টি ক্লোটিং হিসাবে কাজ করে কারণ এতে কে আছে।

লিটারের এমোনিয়া কমিয়ে দেয় যদি খাবারে ১-২% চারকল দেয়া যায়।

পানি পরিস্কারের জন্য চারকল কাজ করে ফিল্টারিং ও শোষণ করে ব্যাক্টেরিয়া ও এল্গি ।

সালফার ডাগের সাথে এসিডিক পি এইচে ভাল কাজ করে।

Please follow and like us:

About admin

Avatar

Check Also

টিপস ২০

টিপস ২০ #ভিটামিন ডি ৩ এর সোর্স(মাছের লিভারের তেল ও মাছের তেল) #প্রডাকশন বেশি হলে ...

Translate »
error: Content is protected !!