Breaking News

মহেষ ফর্মূলাঃ অল্প খরচে অল্প সময় ফিড ফর্মোলেশন করে মোটাতাজাকরণ

মহেষ ফর্মূলা!!!
********************************
আজকে গরু মোটাতাজা করার জন্য এমন একটা রেশনিং ফর্মূলা দিবো যেটাতে একেবারে প্রান্তিক পর্যায়ের খামারীরা অনেক সাশ্রয়ী উপায়ে দুই থেকে তিন মাসে একেবারে শুকনা গরু গুলি স্বাস্থ্য-সম্মত উপায়ে মোটা তাজা করতে পারবেন।
গ্রামে সাধারণত বিভিন্ন ধরনের দানাদার খাদ্য সহজ লভ্য নয় আর সহজলভ্য হলেও সেইগুলির দাম কিছুটা বেশী হয়। তবে ভুট্টার গুড়া,চাউলের কুরা,সরিষার খৈল,রাব বা চিটাগুড় এই জিনিষ গুলি গ্রাম বা প্রত্যন্ত অঞ্চলে একদম সহজলভ্য। এই প্রকল্পের মেয়াদ   হতে পারে দুই থেকে তিন মাস বড়জোড়। যে সব গরু গুলিকে প্রান্তিক কৃষকেরা শুধু সামান্য কুরা,লবণ,পানি মিশিয়ে মানে নাম কা ওয়াস্তে দানাদার খাইয়ে সাথে মাঠের ঘাস ও খড়্র খাইয়ে পালন করেন সেই জীর্ণ-শীর্ণ গরু গুলি এই প্রকল্পের জন্য আদর্শ। হোক সেটা ষাঁড় বা বাছুর বিহীন গাভী। গরুর শারীরিক অবস্থা অনেকটা শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় এর গফুরের ‘মহেষ’ এর মতো হলেও চলবে! আর এইবার আসেন গরুকে এই ‘মহেষ’ ফর্মূলা অনুযায়ী কি খাদ্য খাওয়াবেন? নীচে তার তালিকা আমি দিচ্ছি। তার আগে বলে নেই প্রতি ১০০ কেজি লাইভওয়েটের গরুকে ১ কেজি দানাদার খাদ্য দিতে হবে এবং এর সাথে ৮/১০কেজি কাঁচা ঘাস (দেশী না চাষ করা),১ কেজি শুক্না ধানের খড়।
দানাদার খাদ্যের তালিকাঃ
ঈস্ট দিয়ে ফার্মেন্টেশন করা ভুট্টা ৫০%
চালের কুরা ৩০%
সরিষার খৈল ২০%
এর সাথে রাব বা চিটাগুড় গরু প্রতি ১০০ গ্রাম। প্রথম ১ মাস দানাদার খাদ্য উপরের তালিকা অনুযায়ী দিবিন কিন্তু শেষ ১/২ মাস দানাদার খাদ্যের সাথে গরু প্রতি ২০০ গ্রাম রান্না করা চাউলের খুদের জাউ মিশিয়ে খাওয়াবেন। এই প্রকল্পের জন্য ৭০-১২০ কেজি লাইভওয়েটের গরু বেছে নিলে খুব ভালো হয়। ইনশাআল্লাহ, খুব ভালো একটা ফলাফল পাবেন এই ‘মহেষ’ প্রকল্পটিতে!!!

মুক্তি মাহমুদ

Please follow and like us:

About admin

Check Also

প্লাস্টিক ড্রামে কাঁচা ঘাস বা সাইলেস সংরক্ষন”

প্লাস্টিক ড্রামে কাঁচা ঘাস বা সাইলেস সংরক্ষন” বাজার থেকে রং বা ক্যেমিক্যেলের ব্যবহারিত খালি প্লাস্টিকের …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Translate »
error: Content is protected !!