Breaking News

ফেইসবুক গ্রুপে লাইভে ভেট এবং খামারীদের ট্রেনিং মডিউল

গ্রুপে প্রতি সপ্তাহে বুধবার লাইভে আলোচনা /প্রশ্নোত্তর হবে।সপ্তাহে না হলেও ১৫দিনে একবার হবে (বুধবার)।আপাতত এটা নির্ধারিত যদি কোন সমস্যা না হয়।

১দিন হবে ডি পি এস গ্রুপে  পরের বার ভেট ডেভেলপার গ্রুপে(পালাক্রমে)।

এসবের পাশাপাশি যারা  বেশি আগ্রহী এবং অল্প সময়ে ট্রেনিং নিয়ে বিস্তারিত জেনে পোল্ট্রির প্যাক্টিস করতে চায় তাদের জন্যঃ

যারা কোর্স করে পোল্ট্রির উপর পূর্ণ ট্রেইনিং নিতে চায় তাদের জন্য একটি প্রস্তাবনা ঃ

আমাদের দেশে এই মূহুর্তে পোস্ট গ্রাজুয়েট ট্রেইনিং এর সুযোগ নাই,তাছাড়া ক্যাম্পাসে যা শিখানো হয় তা দিয়ে প্যাক্টিস করা অনেকেইর জন্যই কঠিন।

অনেক ভেট আমার সাথে যোগাযোগ করেছিল ট্রেনিং এর ব্যাপারে তখন আমি বলেছিলাম আমার এখানে আসতে হবে কিন্তু সময় ,ব্যস্ততা ,দূরত্ব যার জন্য হয়ে উঠেনি।বর্তমান সময় করোনা  থেকে যা বুঝলাম।অনলাইনে কিছু করার সুযোগ আছে এবং উন্নত দেশে তাই করতেছে।বাসায় বসে যদি ট্রেনিং এবং দেয়া যায় তাতে সবার জন্য ভাল।

যারা ট্রেনিং নিবে তাদের জন্য একটি ট্রেনিং গ্রুপ থাকবে যেখানে শুধু নির্ধারিত ভেটই থাকবে/আরেকটি সিস্টেম হতে পারে জুমের মাধ্যমে।

ট্রেনিং এর একটা গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্ট থাকবে সব বিষয়ের উপর ছবি দেখানো হবে,আমার কাছে কয়েক হাজার  পোল্ট্রির  ছবি আছে।পোস্ট মর্টেম,ক্লিনিকেল ফাইন্ডিং সহ ফার্মের প্রয়োজনীয় সব কিছু।

ফেইসবুক গ্রুপে লাইভে ভেট এবং খামারীদের ট্রেনিং মডিউল

ক।ভেটদের জন্য প্রয়োজনীয় টপিকস

ব্যবস্থাপনা

১।সেড নির্মাণ ও জীবাণূমুক্তকরণ পদ্ধতি.

২।ব্রুডিং ব্যবস্থাপনা এবং বিভিন্ন ব্রুডার ,খাবার পাত্র ও পানির পাত্র কওন বয়সে কয়টা দিতে হবে তা মনে রাখার সহজ পদ্ধতি।

২।টিকার সিডিউল,টিকার দেয়ার পরেও কেন কাজ করেনা ।সরকারী টিকার বিবরণ

৩।মুরগির সেড এবং খাচার মাপ ,খরচ সহ

৪।শীত,বর্ষা এবং গরমকালীন ব্যবস্থাপনা

৫।ফার্মে লাভ লসের কারণ

৬।লাইটিং প্রোগ্রাম ,বাল্ব,ওয়াট।

৭।ফার্মের জীবাণু সেডে কতদিন থাকে এবং কিভাবে দূর করবেন

৮।মুরগির বয়স অনুযায়ী খাবার ,পানি ও ওজন বের করার সহজ পদ্ধতি।বডি ওয়েট অনুযায়ী মেডিসিন দেয়ার কৌশল,টিকার জন্য কত টুকু পানি দিতে হবে তা বের করার সহজ পদ্ধতি।

৯।সেডের বিভিন্ন পদ্ধতি এবং যন্ত্রপাতি

১০।মুরগিতে কিভাবে ধকল পড়ে এবং রোগ হয়।

১১।পর্দা এবং লিটার ব্যবস্থাপনা

১২।ফার্মে ইদুর,মাছি কেন হয় এবং সমাধান কি

১৩।বাচ্চা মর্টালিটির কারণ এবং কোন বয়সে কোন রোগ হয়।

১৪।হ্যাচিং পর দ্রুত খাবার দেয়ার কারণ

১৬।ডিম কমে যাবার কারণ

১৫।প্রোলাপ্স এবং ঠোকরা ঠুকরি কেন করে ,সমাধান কি

১৬।ফার্ম ব্যবস্থাপনার বিভিন্ন ধরণের  ভুল

১৭।ফার্মে যে কোন সমস্যার পিছনে যে বিষয় গুলি জড়িত

১৮।খাবার ছিটানোর কারণ এবং সমাধান

১৯।ফার্মে রোগ বিস্তার এবং সমাধানে করণীয়

২০.১০০০ লেয়ারের নিপল লাইনের খরচ এবং লেয়ার পালন সিডিউল

২১।ফার্মে ডিলার ,কোয়াক এবং এম আর দের ভূমিকা ও ফলাফল

২২।কৃমি এবং কৃমিনাশক ব্যবস্থাপনা

২৩।বায়োসিকিউরিটি

২৪।ঠোটকাটা এবং ব্যবস্থাপনা এবং মুরগি ছাটাই ।

২৫।ফার্মে কাজের রুটিন

২৬।লেয়ার প্রজেক্ট ,ব্রয়লার প্রজেক্ট,সোনালী প্রজেক্ট,কোয়েল প্রজেক্ট

২৭।টিপস

উপরের ২৭টি পয়েন্ট শুধু খামারীদের জন্য

 ডাক্তারদের জন্য উপরের এবং নিচের সবগুলো

২৮।রোগ ব্যাধির বর্ণনা ৮০টি(লেয়ারের প্রায় ৩০টি।ব্রয়লারের ২০টি,সোনালীর ১০টি,কোয়েলের ১০টি)

১৯।মুরগির এনাটমি এবং ফিজিওলোজি ,সুস্থ লিভার সুস্থ মুরগি এবং লিভারের সাথে জড়িত বিভিন্ন রোগ

২৯।প্রজননতন্র,ডাইজেস্টিভ সিস্টেম এবং ইউরিনারি সিস্টেম,রেস্পিরেটরী সিস্টেমের উপর আলোচনা এবং বিভিন্ন রোগ।

৩০।মেডিসিন এর উপর ৪০টি টপিকস

মোড অফ একশন এন্টিবায়োটিস ,কৃমিনাশক।

ব্যাক্টেরিওস্টেটিক এবং ব্যাক্টেরিঈসাইডাল এন্টিবায়োটিক

গ্রুপ এবং পি এইচ অনুযায়ী এন্টিবায়োটিস

যে এন্টিবায়োটিকের সাথে পি এইচ দেয়া যায়

সিনারজেস্টিক ও এন্টাগনিজম এন্টিবায়োটিক

এন্টিবায়োটিকের ডোজ হিসেব করার সিস্টেম এবং বিভিন্ন এন্টিবায়োটিকের  প্রত্যাহার কাল

এন্টিবায়োটিক যেভাবে রেজিস্টেন্ট হয়

রোগ নির্ণয় করতে কি কি হিস্ট্রি নিতে হয়

পয়েন্ট ফর প্রেসক্রিপশন

মোড অফ একশন এঞ্জাইম,প্রাবোটিক,এন্টিমাইকোটক্সিন,ভাইরাস,রেস্পিরেটরী স্টিমুলেন্ট।এসিডিফায়ার /লিভার টনিক, কিডনি টনিক।

বিভিন্ন কোম্পানীর  সব এন্টিবায়োটিক,ভিটামিন মিনারেলস,এডিএ,ক্যালসিয়াম,স্যালাইন,পি এইচ,এন্টিফাংগাল,কফ নিঃসারক,প্রোটিন ,এমানো এসিড,ক্লোলিন,।লিভারটনিক,কিডনি টনিক,এন্টিডায়রিয়াল,টিকার মিক্সার,এঞ্জাইম,জিংক,কৃমিনাশক।ইমোনোস্টিমোলেটর,এন্টি কক্সিডিয়াল,জীবানূনাশক ও পানি পরিস্কারক, সব কিছুর জেনেরিক ও ট্রেড নাম ও ডোজ।টিকার নাম ,রুট ও ডোজ।

৩১।অর্গান অনুযায়ী ৩০টি টপিকস

বিভিন্ন অর্গান দেখে রোগ নির্ণয়( লিভার,কিডনি ,চোখ,হার্ট,ফুসফুস ,প্রভেন্টিকোলাস।গিজার্ড ,ক্রপ,স্কিন,বার্সা।ট্রাকিয়া,ঝুটি,পা,এবডোমিনাল ফ্যাট,এয়ারস্যাক।ওয়াটল।ক্ষুদ্রান্ত,সিকাম।ডিওডেনাম।পিত্তাশয়।জরায়ু,ওভারী,শরীরের বিভিন্ন পরিবর্তন।

৩২।কিভাবে ভাল প্যাক্টিশনার্স হওয়া যায়,খামারীদের হালচাল,ল্যাবের উপর ১০টি টপিক্স

কন্সাল্ট্যান্ট/দক্ষ হতে কি জানতে হবে এবং কিভাবে প্যাক্টিস করতে হবে।

খামারীদের চাওয়া এবং ডাক্তারদের পরামর্শ কেমন হওয়া উচিত

চাকরি না করে বা চাকরি ছেড়ে প্রাইভেট প্যাক্টিস করতে কেমন হবে

ভাল এবং স্টহিক চিকিতসা করতে গেলে বাংলাদেশে কি কি সমস্যা হয়।

পোল্ট্রি শিল্পে খামারীদে অবস্থা এবং খামাস্রীদে সচেতন করার প্রয়োজনীয়তা

ভেটেরিনারি শিক্ষার গুরুত্ব

ভ্যাক্সিন দেয়ার কতদিন পর টাইটার উঠে এবং কতদিন থাকে

বিভিন্ন রোগের ম্যাট্রারনাল এন্টিবডি বাচ্চাতে কতদিন থাকে

ল্যাব টেস্টের গুরুত্ব

মিক্স ইনফেকশন এবং ল্যাব টেস্ট

রোগ নির্ণয় করার পদ্ধতি।

সহজ ভাবে  চিকিৎসা দেয়ার সিস্টেম

৩২।হ্যাচারী ,ব্রিডার

হ্যাচারী ও ব্রিডার থেকে কি কি রোগ নিয়ে আসে এবং প্রাথমিক আলোচনা ও পরিচিতি ।

৩৩।ফিড এবং বাচ্চার কোয়ালিটি,আবহাওয়ার সাথে ফিডের পরিবর্তন ,প্রডাকশনের সম্পর্ক ।

সব মিলে প্রায় ২০০ এর উপর টপিকস যা দিনে ৩টা করে শেষ করতে প্রায় ২মাস লাগবে।

ভেটদের ২ভাগে করা হয়েছে ইন্টার্নীর পর এবং ইন্টার্নীর সময় (৩০০০টাকা)।

ফি

৬০০০টাকা (ইন্টার্নীর পর যারা চাকরি করবে তাদের জন্য)

৩০০০ টাকা যারা ইন্টার্র্নি রানিং অবস্থায়।

ফি টা একবারে দিতে হবে না।সাপ্তাহিক ভাবে ভাগ করে দিলেই হবে।

কারো মনে যদি প্রশ্ন জাগে ট্রেনিং এ টাকা লাগবে কেন?

তাদেরকে বলছিঃ

সারা পৃথিবীতেই ভোক্তারা/সেবা গ্রহীতারা  অর্থ দিয়ে সার্ভিস চাচ্ছে কিন্তু তা অনেক সময়  পাচ্ছে না পাইলেও অনেক সময় ভাল মানের হয় না।

ট্রেনিং দেয়ার জন্য শ্রম ও সময়  লাগবে।তাছাড়া ফি জিনিসের মূল্যায়ণ থাকে না।বাংলাদেশেত অবশ্যই নাই।

ব্লগে যে লেখা গুল আছে তাতে একেক টা লেখায় কয়েক সপ্তাহ থেকে মাস লেগে যায় তাছাড়া হালনাগাত করতে হয় সব সময়।প্রচুর কস্টের এবং ধৈর্যের কাজ।

এখানে যে ফি ধরা হয়েছে তা ফাইনাল না কম বেশি হতে পারে।তাছাড়া ট্রেনিং এর যে সময় বলা আছে তা কম বেশি হতে পারে।

 খ।খামারীদের জন্য প্রায় ৩০টি টপিকস দিনে ২টি করে হলে প্রায় ১৫দিন লাগবে।

খামারীদের কে ৩ভাগে করা হয়েছে লেয়ার(১৫০০টাকা) ,ব্রয়লার (১০০০টাকা(,সোনালী(১০০০টাকা)

ভেটদের ট্রেনিং গ্রুপ

১।ভেট ট্রেনিং গ্রুপ ইন্টার্ণির সময়

১।ভেট ট্রেনিং গ্রুপ ইন্টার্ণির পর

খামারীদের ট্রেনিং গ্রুপ(গ্রুপ এখনো খোলা হয় নি,হলে জানিয়ে দেয়া হবে) যারা আগ্রহী তারা নিচের নাম্বারে যোগাযোগ করতে পারেন ০১৭১৭৩০০৭০৬

১।খামারীদের  লেয়ার ট্রেনিং গ্রুপ.

২।খামারীদের ব্রয়লার ট্রেনিং গ্রুপ

৩।খামারিদের সোনালী ট্রেনিং গ্রুপ।

৪। খামারীদের  কোয়েল ট্রেনিং গ্রুপ

পরে হাঁস ,কবুতর গ্রুপ করা হবে।

ট্রেইনিং নিতে আগ্রহীদের শুধু গ্রুপে রাখা হবে।ট্রেনিং প্রোগ্রাম রাতে হবে.৮-১০টার মধ্যে।

ট্রেইনিং এর আকষণীয় বিষয় হল জটিল বিষয় গুলো সহজে মনে রাখার পদ্ধতি এবং অনেক বেশি তথ্য এবং প্যাক্টিকেল ওরিয়েন্ট পাঠদানের ব্যবস্থা।

প্যাথোজেনেইসিস গুলো এমন ভাবে শিখানো হবে যাতে লক্ষণ ,পোস্ট মর্টেম এবং চিকিৎসা মুখস্থ না করতে হয়।

যেমন বয়স অনুযায়ী খাবার,পানি,ওজন,ভ্যাক্সিন সিডিউল,ভ্যাক্সিনে কতটুকু পানি লাগবে,বডি ওয়েট অনুযায়ী মেডিসিন দেয়ার নিয়ম ।

শিক্ষা হবে আনন্দ এবং গল্পের সাথে।

ইন্টার্নীর সময় যাদের অর্থের সংকট থাকবে তাদের জন্য ছাড় থাকবে মানে যতটুকু পারে দিলেই হবে ভবিষ্যতে যখন সুযোগ হবে তখন বাকিটুকু দিলেই হবে।

নিজেরা  বন্ধুদের সাথে মিলে হতে পারে বা আলাদাভাবে আমার সাথে যোগাযোগ করলেও হবে ।

সবার মতামত আশা করছি।

 

Please follow and like us:

About admin

Check Also

বইঃসহজে রোগ নির্ণয় ও চিকিৎসা (লেয়ার,ব্রয়লার ও সোনালী)।বইটি কেমন জানতে ভিজিট করুন এবং সূচী দেখুন।

সহজে রোগ নির্ণয় ও চিকিৎসা (লেয়ার,ব্রয়লার ও সোনালী) ডা মো সোহরাব হুসান (ট্রেইনার এবং পোল্ট্রি …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Translate »
error: Content is protected !!