Breaking News

গরুর ড্রাই মেটার,প্রোটিন, এনার্জি,ক্যালসিয়াম-ফসফরাস হিসাব করার সহজ নিয়ম এবং গরু মোটাতাজাকরণ

 ★ড্রাই মেটার (DM) অনুযায়ী দুগ্ধ খামার ও মোটাতাজাকরণ খামারে খাবার প্রদানের নিয়মঃ

★দুগ্ধ খামারে নিয়ম-
দুগ্ধ খামারের হিসেব অনুযায়ী একটি গাভীর তার মোট ওজনের ২% ড্রাই মেটার (DM) প্রয়োজন।
পাশাপাশি তার প্রতি লিটার দুধ উৎপাদনের জন্য প্রয়োজন ০.৩৩% DM.
উদাহরণ দিয়ে বিষয়টি ক্লিয়ার করছি-
একটি গাভীর ওজন ৪০০ কেজি এবং তার দৈনিক দুধ উৎপাদন হলো ১৬ লিটার। তার দৈনিক খাবার ড্রাই মেটার অনুযায়ী কতটুকু প্রয়োজন?
★ওজন অনুযায়ী DM প্রয়োজন= ৪*২= ৮ কেজি
দুধের প্রডাকশন অনুযায়ী DM = ১৬*০.৩৩= ৫.২৮ কেজি DM.
মোট DM= ১৩.২৮ কেজি।
এখন ঘাস, খড় ও ব্যালেন্স দানাদার খাবার দিয়ে ঐ গাভীটির দৈনিক প্রয়োজনীয় DM পুরণ করতে হবে।
★একটি আদর্শ ব্যালেন্স ফিডে (যেমন- নারিশ ডেইরী ফিড) প্রতি কেজিতে ময়েশ্চার/আদ্রতা এর মাত্রা থাকে ১২%; অথ্যাৎ DM থাকে প্রতি কেজিতে ০.৮৮ কেজি।
প্রতি কেজি কাচাঁ ঘাসে (আনুমানিক) DM থাকে ০.২ কেজি।
প্রতি কেজি শুকনো খড়ে (আনুমানিক) DM থাকে ০.৮ কেজি।
★ এখানে লাইভ ওজনের জন্য প্রয়োজনীয় DM পূরন করবো ঘাস ও খড় দিয়ে ও দুধের জন্য প্রয়োজনীয় DM পূরন করবো ব্যালেন্স ফিড দিয়ে।
৪ কেজি DM পূরনের জন্য ঘাস প্রয়োজন= ৪/০.২= ২০ কেজি।
৪ কেজি DM পূরনের জন্য খড় প্রয়োজন= ৪/০.৮= ৫ কেজি।
৫.২৮ কেজি DM পূরনে ব্যালেন্স ফিডের প্রয়োজন= ৬ কেজি।
★ পর্যাপ্ত ঘাস থাকলে খড়ের উপর নির্ভরশীলতা কমানো যায় আবার পর্যাপ্ত ঘাস না থাকলে তখন খড়ের উপর নির্ভরশীলতা বাড়াতে হয়। গাভী পালনের বিষয়ে খড়ের উপর নির্ভরশীলতা কমিয়ে ঘাসের উপর সর্বোচ্চ গুরুত্ব প্রদান করা প্রয়োজন। পর্যাপ্ত কাচাঁ ঘাসের সরবরাহ থাকলে দানাদার খবারের উপর চাপ কমানো সম্ভব।

★মোটাতাজাকরণ খামারে নিয়ম-
মোটাতাজাকরণ গরুতে দৈনিক খাবারের DM প্রয়োজন হলো ৩% বা প্রতি ১০০ কেজি লাইভ ওজনের বিপরীতে DM প্রয়োজন ৩ কেজি।
উদাহরণস্বরুপ-
একটি ৩০০ কেজি ওজনের গরুতে DM প্রয়োজন= ৩*৩= ৯ কেজি।
এখানে ঘাস, খড় ও ব্যালেন্স দানাদার খাবার দিয়ে আমরা প্রয়োজনীয় DM পূরন করবো।
★ ৩ কেজি DM পূরণে কাচাঁ ঘাসের প্রয়োজন= ৩/০.২= ১৫ কেজি
৩ কেজি DM পূরণে খড়ের প্রয়োজন= ৩/০.৮= ৩.৭৫ কেজি।
৩ কেজি DM পূরনে ব্যালেন্স ফিডের প্রয়োজন= ৩/০.৮৮= ৩.৪কেজি।
* ঘাস, খড় কম বেশি হলে তখন হিসেবের পরিবর্তন হতে পারে।

 

২য় পর্ব
#একটি খামারে দৈনন্দিন খাবারের Dry Matter (DM), Protein, Energy, Calcium, Phosphorus এগুলো সব ব্যালেন্স করেই খাবার প্রদান করা উচিৎ।
আজ উক্ত গাভীতে প্রদত্ত খাবার দিয়ে প্রোটিন এর চাহিদা পূরন হলো কি না সেটি নিয়ে আলোচনা করবো-
★ গাভিটির লাইভ ওজন ছিলো= ৪০০ কেজি।
দৈনিক দুধ উৎপাদন= ১৬ লিটার।
আমরা জানি প্রতি কেজি লাইভ ওজনের জন্য প্রোটিন দরকার ১ গ্রাম।
পাশাপাশি প্রতি লিটার দুধ উৎপাদনের জন্য প্রোটিন দরকার ৯০ গ্রাম (কমপক্ষে)।
★ঐ গাভীটির প্রোটিন প্রয়োজন ওজন অনুযায়ী= ৪০০*১= ৪০০গ্রাম।
দুধের জন্য= ১৬*৯০= ১৪৪০ গ্রাম।
মোট প্রোটিন দরকার= ১৮৪০
★আমরা জানি-
১ কেজি কাচাঁ ঘাসে প্রোটিন থাকে (আনুমানিক)= ২০ গ্রাম
১ কেজি খড়ে প্রোটিন থাকে (আনুমানিক)= ৪ গ্রাম
ফিডের হিসেব অনুযায়ী এক কেজি নারিশ ডেইরী প্রিমিয়াম ফিডে প্রোটিন থাকে ২১০ গ্রাম।
★ ঐ গাভীটি কে DM অনুযায়ী যে খাবার দেওয়া হয়েছিলো সেটি দিয়েই প্রোটিনের হিসেব করি-
১। সবুজ কাচাঁ ঘাস= ২০ কেজি।
মোট প্রোটিন= ২০*২০= ৪০০ গ্রাম
২। খড় = ৫ কেজি
মোট প্রোটিন= ৫*৪= ২০ গ্রাম
৩। ব্যালেন্স ফিড (নারিশ প্রিমিয়াম)= ৬ কেজি।
মোট প্রোটিন= ৬*২১০= ১২৬০ গ্রাম।
মোট প্রোটিন= ১৬৮০ গ্রাম।
তাহলে এখানে প্রোটিন কম= ১৮৪০-১৬৮০= ১৬০ গ্রাম!
এক্ষেত্রে প্রডাকশন ঠিক রাখার জন্য গাভিটিকে আরও ৫০০ গ্রাম থেকে ৭০০ গ্রাম ব্যালেন্স ফিড দৈনিক বাড়িয়ে দিতে হবে।

৩য় পর্ব
আজ উক্ত গাভীতে প্রদত্ত খাবার দিয়ে ‘এনার্জি’ (Energy) এর চাহিদা পূরন হলো কি না সেটি নিয়ে আলোচনা করবো-
★ গাভিটির লাইভ ওজন ছিলো= ৪০০ কেজি।
দৈনিক দুধ উৎপাদন= ১৬ লিটার।
আমরা জানি প্রতি কেজি লাইভ ওজনের জন্য এনার্জি (Energy) দরকার ০.১২ মেগাজুল/MJ
পাশাপাশি প্রতি লিটার দুধ উৎপাদনের জন্য এনার্জি (Energy) প্রয়োজন ৫.৪ মেগাজুল/MJ
★ঐ গাভীটির এনার্জি (Energy) প্রয়োজন ওজন অনুযায়ী= ৪০০*০.১২= ৪৮ মেগাজুল/MJ
দুধের জন্য= ১৬*৫.৪= ৮৬.৪ মেগাজুল/MJ
মোট এনার্জি (Energy) দরকার= ৪৮+৮৬.৪= ১৩৪.৪ মেগাজুল/MJ
★আমরা জানি-
১ কেজি কাচাঁ ঘাসে এনার্জি (Energy) থাকে (আনুমানিক)= ২ মেগাজুল/MJ
১ কেজি খড়ে এনার্জি থাকে (আনুমানিক)= ৫ মেগাজুল/MJ
ফিডের হিসেব অনুযায়ী এক কেজি নারিশ ডেইরী প্রিমিয়াম ফিডে এনার্জি (Energy) থাকে= ১২ মেগাজুল/MJ
★ ঐ গাভীটি কে DM অনুযায়ী যে খাবার দেওয়া হয়েছিলো সেটি দিয়েই এনার্জি (Energy) হিসেব করি-
১। সবুজ কাচাঁ ঘাস= ২০ কেজি।
মোট এনার্জি (Energy) = ২০*২= ৪০ মেগাজুল/MJ
২। খড় = ৫ কেজি
মোট এনার্জি (Energy) = ৫*৫= ২৫ মেগাজুল/MJ
৩। ব্যালেন্স ফিড (নারিশ প্রিমিয়াম)= ৬ কেজি।
মোট এনার্জি (Energy) = ৬*১২ = ৭২ মেগাজুল/MJ
মোট এনার্জি (Energy)= ১৩৭ মেগাজুল/MJ

★ঐ গাভিটির লাইভ ওজন ও দৈনিক দুধ উৎপাদন অনুযায়ী এনার্জি (Energy) প্রয়োজন= ১৩৪.৪ মেগাজুল/MJ.
*ড্রাইমেটার (DM) ও প্রোটিন অনুযায়ী যে খাবার দেওয়া হয়েছে তাহাতে এনার্জি (Energy) এর পরিমান= ১৩৭ মেগাজুল/MJ. যাহা ঐ গাভিটির এনার্জি’র (Energy) প্রয়োজনীয়তা কে কভার করছে।

৪র্থ পর্ব

আজ উক্ত গাভীতে প্রদত্ত খাবার দিয়ে ‘ক্যালসিয়াম’ (Ca) ও ‘ফসফরাস’ (P) এর চাহিদা পূরন হলো কি না সেটি নিয়ে আলোচনা করবো-
★ উচ্চ দুগ্ধজাত গাভীর জন্য দৈনিক রেশনে ক্যালসিয়াম (Ca) ও ফসফরাস (P) এর গুরুত্ব খুবই বেশি।
★ গাভিটির লাইভ ওজন ছিলো= ৪০০ কেজি।
দৈনিক দুধ উৎপাদন= ১৬ লিটার।
আমরা জানি প্রতি কেজি লাইভ ওজনের জন্য ক্যালসিয়াম (Ca) দরকার ০.০৪ গ্রাম ও ফসফরাস (P) দরকার ০.০৩ গ্রাম।
পাশাপাশি প্রতি লিটার দুধ উৎপাদনের জন্য ক্যালসিয়াম (Ca) প্রয়োজন ৩.২৫ গ্রাম ও ফসফরাস (P) প্রয়োজন ২ গ্রাম।
★ঐ গাভীটির ক্যালসিয়াম (Ca) প্রয়োজন ওজন অনুযায়ী= ৪০০*০.০৪= ১৬ গ্রাম।
দুধের জন্য= ১৬*৩.২৫= ৫২ গ্রাম।
মোট ক্যালসিয়াম (Ca) দরকার= ১৬+৫২= ৬৮ গ্রাম।
★ ঐ গাভীটির ফসফরাস (P) প্রয়োজন ওজন অনুযায়ী= ৪০০*০.০৩= ১২ গ্রাম।
দুধের জন্য= ১৬*২= ৩২ গ্রাম।
মোট ফসফরাস (P) দরকার= ১২+৩২= ৪৪ গ্রাম।
★আমরা জানি-
ফিডের হিসেব অনুযায়ী এক কেজি নারিশ ডেইরী প্রিমিয়াম ফিডে ক্যালসিয়াম থাকে= ১২.৫ গ্রাম ও ফসফরাস (P) থাকে ৮ গ্রাম।
(অন্যান্য ব্রান্ড কোম্পানির ক্ষেত্রেও ক্যালসিয়াম (Ca) ও ফসফরাস (P) এর হিসেব খুব সহজেই ফিডের বস্তার গায়েই পাবেন)
★ ঐ গাভীটি কে DM অনুযায়ী যে টুকু ব্যালেন্স দানাদার খাবার দেওয়া হয়েছিলো সেটি দিয়েই ক্যালসিয়াম (Ca) হিসেব করি-
ব্যালেন্স রেশন ফিড (নারিশ প্রিমিয়াম)= ৬ কেজি।
মোট ক্যালসিয়াম (Ca) = ৬*১২.৫ = ৭৫ গ্রাম।
মোট ফসফরাস (P)= ৪৮ গ্রাম।

★ঐ গাভিটির লাইভ ওজন ও দৈনিক দুধ উৎপাদন অনুযায়ী ক্যালসিয়াম (Ca) প্রয়োজন ৬৮ গ্রাম ও ফসফরাস (P) প্রয়োজন ৪৪ গ্রাম।
★ ড্রাইমেটার (DM), প্রোটিন (CP) ও এনার্জি (Energy) অনুযায়ী যে ব্যালেন্স দানাদার খাবার দেওয়া হয়েছে তাহাতে ক্যালসিয়াম (Ca) এর পরিমান= ৭৫ গ্রাম ও ফসফরাস (P) এর পরিমান ৪৮ গ্রাম; যাহা ঐ গাভিটির ক্যালসিয়াম (Ca) ও ফসফরাস (P) এর প্রয়োজনীয়তা কে ভাল ভাবেই কভার করছে।

৫ম পর্ব (বিশেষ পর্ব): অনেকেই মোটাতাজাকরণ খামারের জন্য লেখার অনুরোধ করেছিলেন।

★গরু মোটাতাজাকরণ বলতে আমরা কি বুজি?
– স্বল্প সময়ে প্রযুক্তিনির্ভর পরিকল্পনামাফিক গরুর ওজন ও মাংস দ্রুত বৃদ্ধির প্রক্রিয়াকে মোটাতাজাকরণ বলা হয়।
অতএব; মোটাতাজাকরণ প্রক্রিয়াটি দীর্ঘমেয়াদী কোন প্রক্রিয়া নয়।৩ মাস থেকে ৪ মাস সর্বোচ্চ মেয়াদকাল হতে পারে।এই মেয়াদকালের মধ্যেই গরুর খাবারটি এমন ভাবে দিতে হবে যাহাতে কাঙ্ক্ষিত লক্ষমাত্রাতে পৌন্ছানো যায়।
তাই মোটাতাজাকরণে গরুর বয়সের বিষয়টি খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

★মোটাতাজাকরণ খামারে নিয়ম-
★১। ড্রাই মেটার (DM):
মোটাতাজাকরণ গরুতে দৈনিক খাবারের DM প্রয়োজন হলো ৩% বা প্রতি ১০০ কেজি লাইভ ওজনের বিপরীতে DM প্রয়োজন ৩ কেজি।
উদাহরণস্বরুপ-
একটি ৩০০ কেজি ওজনের গরুতে DM প্রয়োজন= ৩*৩= ৯ কেজি।
এখানে ঘাস, খড় ও ব্যালেন্স দানাদার খাবার দিয়ে আমরা প্রয়োজনীয় DM পূরন করবো।
★ ৩ কেজি DM পূরনে সবুজ ঘাসের প্রয়োজন= ৩/০.২= ১৫ কেজি।
৩ কেজি DM পূরণে খড়ের প্রয়োজন= ৩/০.৮= ৩.৭৫ কেজি।
৩ কেজি DM পূরনে ব্যালেন্স ফিডের প্রয়োজন= ৩/০.৮৮= ৩.৪০ কেজি।

#মোটাতাজাকরনে খাবার রেশনে- প্রোটিন (Protein) ও এনার্জি (Energy) নির্ণয়ে নিউট্রিশনগত হিসেব রয়েছে। আজ শুধু ফিল্ডে প্রয়োগকৃত Thumb Rule আলোচনা করবো।

★২। প্রোটিন (Protein): (Rule of Thumb)-
আমরা জানি, দ্রুত মাংস বৃদ্ধির জন্য প্রোটিন খুবই গুরুত্বপূর্ণ।
মোটাতাজাকরণে প্রোটিন প্রয়োজন প্রতি কেজি ওজনের জন্য ৩ গ্রাম (১ গ্রাম For body Maintainance এবং ২ গ্রাম মাংস গঠনের জন্য)
৩০০ কেজি লাইভ ওজনের জন্য প্রোটিন প্রয়োজন= ৯০০ গ্রাম।
*১ কেজি নারিশ ক্যাটল ফিড প্রোটিন থাকে= ১৮০ গ্রাম।
৩.৪ কেজি নারিশ ক্যাটল ফিডে প্রোটিন = ৬১২ গ্রাম।
* ১৫ কেজি সবুজ ঘাসে প্রোটিন (আনুমনিক)= ৩০০ গ্রাম (প্রতি কেজিতে ২০ গ্রাম)।
* ৩.৭৫ কেজি খড়ে প্রোটিন= ১৫ গ্রাম (প্রতি কেজিতে ৪ গ্রাম অনুযায়ী)
মোট প্রোটিন= ৬১২+৩০০+১৫= ৯২৭ গ্রাম।

★৩। ‘এনার্জি’ (Energy): (Rule of Thumb)
গরুটির লাইভ ওজন= ৩০০ কেজি।
আমরা জানি, মোটাতাজাকরণে প্রতি কেজি লাইভ ওজনের জন্য এনার্জি (Energy) দরকার ০.২৪ মেগাজুল/MJ (০.১২ মেগাজুল/MJ হলো প্রতি কেজি Body Maintainance এর জন্য এবং ০.১২ মেগাজুল/MJ হলো মাংস বৃদ্ধির জন্য)
★ এনার্জি (Energy) প্রয়োজন ওজন অনুযায়ী= ৩০০*০.২৪= ৭২ মেগাজুল/MJ
★আমরা জানি-
১ কেজি কাচাঁ ঘাসে এনার্জি (Energy) থাকে (আনুমানিক)= ২ মেগাজুল/MJ
১ কেজি খড়ে এনার্জি থাকে (আনুমানিক)= ৫ মেগাজুল/MJ
ফিডের হিসেব অনুযায়ী এক কেজি নারিশ ক্যাটল প্রিমিয়াম ফিডে এনার্জি (Energy) থাকে= ১২ মেগাজুল/MJ
★ ঐ গরুটিকে কে DM অনুযায়ী যে খাবার দেওয়া হয়েছিলো সেটি দিয়েই এনার্জি (Energy) হিসেব করি-
১। সবুজ কাচাঁ ঘাস= ১৫ কেজি।
মোট এনার্জি (Energy) = ১৫*২= ৩০ মেগাজুল/MJ
২। খড় = ৩.৭৫ কেজি
মোট এনার্জি (Energy) = ৩.৭৫*৫= ১৮.৭৫ মেগাজুল/MJ
৩। ব্যালেন্স ফিড (নারিশ ক্যাটল প্রিমিয়াম)= ৩.৪ কেজি।
মোট এনার্জি (Energy) = ৩.৪*১২ = ৪০.৮ মেগাজুল/MJ
মোট এনার্জি (Energy)= ৭৯.৫৫ মেগাজুল/MJ

(সঠিক নিয়মে খাবার ও ব্যালেন্স দানাদার খাবার খাওয়ানো হলে মোটাতাজাকরন গরুতে বাড়তি ক্যালসিয়ামের প্রয়োজন নেই)

লেখক-
ডাঃমোঃ শাহ্-আজম খান
সিনিয়র সিএসও (ক্যাটল বিভাগ)
সিরাজগঞ্জ রিজিওন
নারিশ পোল্ট্রি এন্ড হ্যাচারী লিমিটেড।

Please follow and like us:

About admin

Check Also

ষাঁড় গরুর আদর্শ খাদ্য তালিকা : টি এম আর –

পাঠ ১। ষাঁড় গরুর আদর্শ খাদ্য তালিকা : টি এম আর গরুর লাইভ ওয়েট :- …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Translate »
error: Content is protected !!