Breaking News
জার্সি গরু
জার্সি গরু

গরুর জাত পরিচিতি (জার্সি)

গরুর জাত পরিচিতি (জার্সি)

গরুর নাম :

বিভিন্ন জাতের গরুর মিশ্রনে এক বড় গরুর পালের মধ্যে আকৃতিতে সবচে ছোট কিন্তু সবচে মায়াবী সুন্দর মুখের যে গরুটি দেখবেন অন্য সব গরুকে নেতৃত্ব দিচ্ছে, ওটাই আমাদের আজকের আলোচিত গরু, ‘জার্সি’।

আকৃতি ছোট হলেও জার্সি গরুর রয়েছে নেতৃত্ব দেয়ার অসাধারণ ক্ষমতা।

গড় ওজন : ষাঁড় : ৫০০-৮০০ কেজি।
গাভী : ৪০০-৫০০ কেজি।

উৎস দেশ :

যেমন গরুর নাম পরিচয় দিচ্ছে, ব্রিটিশ ইংলিশ চ্যানেল এর জার্সি আইল্যান্ড হচ্ছে জার্সি গরুর উৎস দেশ।

জার্সি দ্বীপের সাথে মিলিয়ে নাম নামকরণ হলেও আসলে পার্শবর্তী নরমান দ্বীপ থেকে গরুটি জার্সি দ্বীপে আসে এবং ১৭০০ সালে প্রথম আলাদা জাত হিসাবে রেকর্ড করা হয়।

ইতিহাসবিদদের ধারণা জার্সি জাতের পূর্ব পুরুষ এশিয়া থেকে ইউরোপে আগমন করেছিল।

জার্সি জাতের স্বকীয়তা রক্ষা করার জন্য ২০০৮ সল্ পর্যন্ত জার্সি দ্বীপে অন্য যেকোনো জাতের গরু পালন বা সিমেন আনা সম্পূর্ণ নিষেধ ছিল।

ইতিহাস :

জার্সি দ্বীপের নামে নামকরণ হলেও আসলে পার্শবর্তী নরমান দ্বীপ থেকে গরুটি জার্সি দ্বীপে আসে এবং ১৭০০ সালে প্রথম আলাদা জাত হিসাবে রেকর্ড করা হয়।

জার্সি জাতের স্বকীয়তা রক্ষা করার জন্য ২০০৮ সল্ পর্যন্ত জার্সি দ্বীপে অন্য যেকোনো জাতের গরু পালন বা সিমেন আনা সম্পূর্ণ নিষেধ ছিল। ১৮৬০ সল্ থেকে প্রথম বিশ্ব যুদ্ধ এই সময়ের মধ্যে জার্সি জাত পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে ব্যাপকহারে ছড়িয়ে পড়ে।

১৬৫৭ : ইউরোপিয়ান অভিবাসীরা প্রথম আমেরিকা তে জার্সি জাতের গরু সাথে করে নিয়ে যায়।
১৮২৯ : জে. টি. পালমার সিডনি, অস্ট্রেলিয়াতে প্রথম জার্সি গরু বহন করে নিয়ে যায়।
১৮৬২ : নিউজিল্যান্ড প্রথম জার্সি গরু আমদানি করে।
১৮৬৮ : কানাডা প্রথম জার্সি গরু আমদানি করে।
১৮৭৩ : কোস্টারিকা প্রথম ল্যাটিন আমেরিকাতে জার্সি গরু আমদানি করে।
১৮৮০ : সাউথ আফ্রিকা জার্সি গরু আমদানি করে।

পালনকারী দেশ এবং সংখ্যা :

পৃথিবীর তৃতীয় বৃহত্তম সংখ্যার গরু হলেও পৃথিবীতে মোট জার্সি গরুর সংখ্যা জানা যায়না।

তবে শুধুমাত্র ছোট জার্সি দ্বীপে ৬০০০ এর উপরে জার্সি গরু পালন করা হয়।

২০১৪ সালে ‘মার্কিন জার্সি কাটল এসোসিয়েশন’ ১১৮,০০০ জার্সি গরু পালনের জন্য রেকর্ড করে।

পূর্ব থেকে পশ্চিম, উত্তর থেকে দক্ষিণ, পৃথিবীর এমন কোনো গরু পালনকারী ভূখণ্ড নাই যেখানে মায়াবী চোখের গারো বাদামি বা ধূসর রঙের এই গরু পালন করা হয় না।

তবে সর্বোচ্চ সংখ্যায় পালনকারী দেশ হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র, অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড, নেদারল্যান্ড, জার্মানি, ইংল্যান্ড, কেনিয়া। আমাদের দেশে এই জাতের গরুর সংখ্যা খুবই কম।

বৈশিষ্ট ও সুবিধা :

আকৃতিতে ছোট এই জাতের গরুর রং সাধারণত গারো বাদামি বা ধূসর রঙের হয়ে থাকে।

এছাড়া গারো লাল রঙেরও হয়ে থাকে এবং শরীরে সাদা রঙের ছটা থাকে। তবে একটা প্রকৃত জার্সি গরুর নাক এবং খুর অবশ্যই কালো রঙের হবে।

উচ্চ প্রজননক্ষম জার্সি গরু অন্নান্য গরুর তুলনায় অপেক্ষাকৃত কম বয়সে প্রজননক্ষম হয় এবং অধিক কাল ধরে দুধ প্রদান করে।

এই জাতের গরু খুবই রোগ প্রতিরোধী হয়ে থাকে এবং এফ এম ডি রোগ হয়না বললেই চলে।

তাই জার্সি গরু পালন খরচ অনেকাংশে কমে যায়। জার্সি গরু হোলস্টাইন ফ্রিজিয়ান এর তুলনায় ৪০% কম খাবার খায়।

এছাড়া জার্সি গরুর দুধে রয়েছে অন্য যেকোনো গরুর তুলনায় অধিক মিল্ক ফ্যাট এবং প্রোটিন।

দুধ ও মাংস উৎপাদন :

একটি জার্সি গরু অ্যাভারেজ ৬০০০-৮০০০ কেজি সর্বোত্তম গুন্ সম্পন্ন দুধ দেয় এবং দুধ উৎপাদন কাল ৩০০-৩০৫ দিন।

এক ল্যাক্টেশন পিরিয়ডে একটি জার্সি গরু তার শরীরের ওজোনের অ্যাভারেজ ১৩ গুন্ দুধ প্রদান করে, যা যেকোনো ডেইরি গাভীর তুলনায় বেশি।

জার্সি গরুর দুধে রয়েছে ৪.৫%-৫.৫% মিল্ক ফ্যাট যা হোলস্টাইন এর ক্ষেত্রে ৩.৭-৪.৭।

অন্যান্য অ্যাভারেজ গরুর (হোলস্টাইন, ব্রাউন সুইস, ফ্লেকভি) তুলনায় ১৮% বেশি প্রোটিন, ২০ % বেশি ক্যালসিয়াম এবং ২৫ % বেশি ফ্যাট রয়েছে।

যদিও জার্সি গরু মাংসের জন্য পালন করা হয়না তারপর ও যেহেতু পৃথিবীতে অধিক সংখ্যায় এই গরু পালন করা হয়, তাই মাংসের বাজারে এই গরুর রয়েছে ব্যাপক উপস্থিতি।

অর্থনৈতিক গুরুত্ব :

জার্সি গরুকে বলা হয় ব্যয় সংকোচনী গরু।

যেসব অঞ্চলে গোখাদ্যের মূল্য অধিক হয় এবং গরু পালন যেখানে চ্যালেন্জিং সেখানে জার্সি গরু পালন সবচে উত্তম সিদ্ধান্ত।

জার্সি গরুর দুধের দাম যেহেতু অন্য গরুর তুলনায় বেশি তাই তুলনামূলক কম দুধ উৎপাদন হবার পরেও জার্সি গরু সবচে লুভ্যনক গরু। আমেরিকার USDA এর করা এক গবেষণায় দেখা গেছে জার্সি গরু পালন অন্য গরু পালনের তুলনায় ২০% বেশি লাভজনক।

তাই ২০১৪ সালে ‘মার্কিন জার্সি কাটল এসোসিয়েশন’ ১১৮,০০০ জার্সি গরু পালনের জন্য রেকর্ড করে যা আমেরিকার ১৪৬ বছরের পেশাদার জার্সি গরু পালনের ইতিহাসে সর্বোচ্চ।

জার্সি গরু উচ্চ প্রজনক্ষম হওয়ায় গর্ভধারণ নিয়ে কোনো সমস্যা হয়না এবং বচ্চা প্রসব নিয়ে ও কোনো সমস্যা হয়না।

২০০৫ সালে কানাডায় এক গবেষণায় দেখা গেছে ৯৬% প্রথম প্রসবে ভেট ডক্টরদের কোনো প্রকার সাহায্য দরকার হয় নাই, যা দ্বিতীয় বছর ৯৯%।

ফ্লোরিডা তে করা আরেক গবেষণায় দেখা গেছে ২২% জার্সি গরু জীবনকালে মাস্টাটিস আক্রান্ত হয় যা হোলস্টাইন ফ্রিজিয়ান ক্ষেত্রে ৫১%।

খুর শক্ত কালো ক্ষুর হওয়ায় এই জাতের গরুর এফ এম ডি বা খুরারোগ হয়না বললেই চলে।

আর যেকোনো আবহাওয়াতে সহজেই মানিয়ে নেয়ার ক্ষমতা তো আছেই। তাই জার্সি গরুকে বলা হয় অর্থনৈতিক বিবেচনায় সবচে ভালো গরুর গরুর জাত।

জার্সি গরু পালনে সমস্যা :

জার্সি গরু যেহেতু কম দুধ দেয় এবং আকৃতিতে ছোট তাই অনেক খামারির জন্য বিশেষ করে যারা কম সময় অধিক মুনাফা লাভ করতে চায় তাদের জন্য এই জাতের গরু পালন অনেক সময় লাভজনক হয়ে ওঠেনা।

জার্সি গরু আকৃতিতে ছোট হয় তাই বাজারমূল্য অন্য গরুর তুলনায় কম।

এছাড়া জার্সি গরুর শারীরিক বৃদ্ধির হার কম এবং আকারে ছোট হওয়ায় জার্সি গরুর ষাঁড়ের মূল্য অন্য গরুর তুলনায় কম।
জীবনকাল :

অ্যাভারেজ গরুর জীবনকাল যেখানে ২২ বছর সেখানে জার্সি গরুর অ্যাভারেজ জীবনকাল ২৫ বছর। ৩৭ বছর পর্যন্ত জার্সি গরুর বেঁচে থাকার রেকর্ড রয়েছে।

যেহেতু জীবনকাল অধিক তাই জার্সি গরু অন্য গরুর তুলনায় অধিক দুধ ও বাচ্চা দেয়।

Reference :

https://en.wikipedia.org/wiki/Jersey_cattle http://www.thecattlesite.com/breeds/dairy/23/jersey/ https://www.usjersey.com/Portals/…/2_Docs/WhyJerseys2015.pdf https://en.wikipedia.org/wiki/Dairy_cattle http://www.jerseydairy.com/about-us/the-jersey-cow/ https://www.jersey.com/jersey-cows http://jersey.org.nz/breed/breed-advantages/

জাহিদুল ইসলাম(পি ডি এফ)

Please follow and like us:

About admin

Check Also

ক্রস এবং অরিজিনাল ফ্রিজিয়ান গাভী চিনার কিছু সহজ উপায় :

ক্রস এবং অরিজিনাল ফ্রিজিয়ান গাভী চিনার কিছু সহজ উপায় : ………………………………………………………… শ্রদ্ধেয় নতুন খামারী ভাইয়ারা …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Translate »
error: Content is protected !!