Breaking News

বনরুই (প্যাঙ্গোলিন)

প্রতিবছর ফেব্রুয়ারি মাসের ৩য় সপ্তাহে প্যাঙ্গোলিন দিবস পালন করা হয়, পৃথিবীব্যাপী এইটা সংরক্ষন সম্পর্কে সচেতনতা বাড়ানোর জন্য। সেই হিসেবে গতকাল চলে গেছে। এখন এই প্যাঙ্গোলিন সম্পর্কে ১০টি কথা..😊

👉১) এদের বাংলাদেশেও পাওয়া যায় 😁। সিরিয়াস্লি..😊 সিলেট, সুন্দরবন, চিটাগাং, এইসব অঞ্চলে… আমাদের দেশে এইটা বনরুই নামে পরিচিত। এইবার অনেকেই চিনবে।

আমি ছোটকালে হাটে দেখেছি এইটার চামড়া বেচতে, কবিরাজেরা এইটা দিয়ে ঔষধ বানায়৷ তখন নাম জানতাম না, এখন জানি এই চামড়ার জন্যেই এরা এদের মেরে বিলুপ্তির পথে পাঠিয়ে দিয়েছে..😡
কিন্তু ঘটনা হচ্ছে, এইটার চামড়ার ঔষধি কোন গুণাগুণ বৈজ্ঞানিকভাবে প্রমাণিত না..😤

👉২) প্যাঙ্গোলিন শব্দটি এসেছে মালয় শব্দ ‘penggulung’ থেকে, যার অর্থ ‘one that rolls up’। সত্যিকার অর্থেই ভয় পেলে এরা পুরো শরীর কুন্ডলি পাকিয়ে (ছবি কমেন্টে) আত্মরক্ষা করার চেষ্টা করে…😊 [পোকেমনের স্যান্ডস্ল্যাশ এইটা দেখেই তৈরী]

👉৩) ৬) এরাই #একমাত্র_স্তন্যপায়ী, যাদের #পুরো_দেহ_আঁইশ_দিয়ে_আবৃত (চোয়ালের দুই পাশ, পায়ের তালু আর পেট বাদ দিয়ে পুরোটাই)

👉৪) এরা মূলত পিঁপড়া খেয়ে বাঁচে। একটা প্যাঙ্গোলিন দিনে ২০,০০০ পিঁপড়া খায়। সেই হিসেবে ১বছরে এরা প্রায় ৭৩মিলিয়ন পিঁপড়া খায়…😱

👉৫) পিঁপড়া খাওয়ার জন্যই এরা বিশেষভাবে অভিযোজিত৷ পিঁপড়ার গর্তে জিহবা ঢুকিয়ে পিঁপড়া খাওয়ার জন্যে এদের #জিহবা প্রায় ৪০সেমি লম্বা হয়, যা কোন কোন প্যাঙ্গোলিনের নিজের #দেহের_চাইতে_বড়..😁

👉৬) জিহবার দৈর্ঘ্য ছাড়াও এদের জিহবায় এক আঠাল পদার্থ থাকে, যার ফলে পিঁপড়া এমনিতে এইটাতে আটকে যায়।

👉৭) এদের মুখে কোন দাঁত নেই, তাই চাবাতে পারেনা। খাবার হজম করার জন্য এদের পাকস্থলীতে কেরাটিনের তৈরী কাঁটার মতন থাকে, এছাড়াও মাঝে মাঝে এরা পাথরও খায়, হজমে সহায়তা করার জন্য (মুরগী, ইত্যাদির মতন)…

👉৮)এদের প্রত্যেক হাতে মাত্র ৩টি করে নখরযুক্ত আঙ্গুল থাকে, যা দিয়েই তারা পিঁপড়ার মাটির বাসা ভেঙ্গে পিঁপড়া বের করে।

👉৯) কালো পেট প্যাঙ্গোলিনের লেজে ৪৬-৪৭টা কশেরুকা (vertebrae) থাকে, যা যেকোন প্রাণির চেয়ে সবচেয়ে বেশি..😊 এদের কোন কোন প্রজাতি এই লেজ দিয়েই বানরের মতন গাছের ডালে ঝুলতে পারে…

👉১০) IUCN এর তথ্যমতে প্রতি ৫মিনিটে একটি করে প্যাঙ্গোলিন শিকার হচ্ছে। ২০১৭সালে ক্যামেরুন সরকার প্রায় ৮টন প্যাঙ্গোলিনের চামড়া বাজেয়াপ্ত করে পুড়িয়ে দেয়৷ বলা হয় প্রায় ১৫ হাজার প্রাণি মেরে এই চামড়া সংগ্রহ করা হয়েছিল..😰। তাই বণ্যপ্রাণি সম্পর্কে আমাদের সবার সচেতনতা জরুরী৷ নিজেও এই ব্যাপারে সচেতন হই, অপরকেও সচেতন করি…👍

Written by-
DR. Sohrab Ali Mollah
DVM, BSMRAU

Please follow and like us:

About admin

Check Also

বিলুপ্তপ্রায় পাঁচটি প্রাণী- রাজশকুন, ঘড়িয়াল, মিঠাপানির কুমির, নীলগাই এবং শুশুক

বর্তমান সময়ে জীববৈচিত্র্য পড়েছে মহা সংকটে। ইতোমধ্যেই বিলুপ্ত হয়ে গেছে তালিকাভুক্ত অসংখ্য প্রজাতির উদ্ভিদ ও …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Translate »
error: Content is protected !!