Breaking News
কঞ্জাংটিভাইটিস
কঞ্জাংটিভাইটিস

কনজাঙ্কটিভাইটিস (পিংক আই/ড্রাই আই)

কনজাঙ্কটিভাইটিস (পিংক আই,ড্রাই আই)

কনজাঙ্কটিভাতে প্রদাহ হলে তাকে কনজাঙ্কটিভাইটিস বলে।এটি এক চোখ বা উভয় চোখে হতে পারে।

কারণ:
১. ইনফেকশন – ব্যাকটেরিয়া, ভাইরাস, ফাঙ্গাস
২. প্যারাসাইট – আইওয়ার্ম (Oxyspirura mansoni, Thelazia spp. and Ceratospira spp.) প্লাজমোডিয়াম স্পিসিস,মাইক্রোসপোরিডিওসিস, ক্রিপ্টোসপোরিডিওসিস অথবা ট্রাইকোমোনিয়াসিস।
৩. ফরেন বডি: বালি,ধূলা,পালকের অংশ ইত্যাদি।
৪. ফিজিক্যাল ইরিট্যান্টস: ধোঁয়া,রাসায়নিক ধোঁয়া (Chemical fumes)।

কনজাঙ্কটিভাইটিস কে তিনটি সাধারণ গ্রুপে ভাগ করা যায়:
1. লোকাল: ইনফেকশন এবং ফরেন বডির কারণে হতে পারে।ইউনিল্যাটেরাল হতে পারে চোখের নিকটেটিং মেমব্রেন/ নিচের আইলিডে ফরেন বডি থাকলে।
2. সেকেন্ডারী:পেরিঅরবিটাল/অরবিটাল রোগ দ্বারা।বিশেষত: ক্রোনিক রাইনাইটিস এবং সাইনুসাইটিস হলে।
3. সিস্টেমিক: সেপ্টিসেমিয়া হলে।

কনজাঙ্কটিভাইটিসের জন্য দায়ী প্রধান রোগসমূহ:
1. Infectious Coryza,mycoplasma
2. Infectious Laryngotracheitis,A I,IB,ND
3. Oxyspiruriasis (Eye worm এরা চোখে ডিম পাড়ে),চোখ চুলকায়। কোন অবজেক্টের সাথে চোখ ঘষে।ঘষতে থাকলে ইনফেকশন হয়।
4. Swollen Head syndrome – Caused by avian metapneumovirus (AMPV)
5. Avian chlamydiosis – The most frequently reported signs in chickens include nasal and ocular discharges, dyspnoea, diarrhea, weight loss, reduced egg production in hens, hyperthermia, lethargy and dullness.
6. Aspergillosis – a) Acute form (Brooder Pneumonia): Newly hatched chicks. b) Chronic form: Adult birds, Causes Poor ventilation,dusty and moldy environment.
এছাড়াও,
7. Ammonia Toxicity: 25ppm এর বেশি হলে টক্সিক।উভয় চোখে হবে,যা কনজাঙ্কটিভাইটিসের জন্য প্রধান ক্লিনিক্যাল সিম্পটম। অ্যাডাল্ট মুরগির চেয়ে ছোট এবং গ্রোয়ার মুরগি অ্যামোনিয়া টক্সিসিটিতে বেশি আক্রান্ত হয়।শীতকালে বেশি হয়।

চিকিৎসা:
কারণ বের করে চিকিৎসা দিতে হয়।কোন এন্টিবায়োটিক কাজ না করলে দেখতে হয় ফরেন বডি আছে কিনা ভিতরে।থাকলে তা জেনারেল অ্যানেস্থেশিয়া প্রয়োগ করে স্যালাইন সলুশন দিয়ে ফ্লাস করা লাগতে পারে।খালি চোখে দেখা যায় এমনকিছু থাকলে স্টেরাইল কটন সোয়াব দিয়ে বের করতে হয়।

poultrydvm.com

 

Please follow and like us:

About admin

Check Also

বাচ্চা মুরগিতে ১ম সপ্তাহে কেন রোগ কম হয়,২সপ্তাহের দিকে কেন বেশি হয়।

বাচ্চাতে ম্যাটার্নাল এম ডি এ নয়ে আসে যা প্রটেকশন দেয়।আবার ২ সপ্তাহে বা পরের দিকে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Translate »
error: Content is protected !!