Breaking News
লাইটিং প্রোগ্রাম
লাইটিং প্রোগ্রাম

লেয়ারের লাইটিং প্রোগ্রাম,কত ওয়াট,কত লাক্স,বয়স অনুযায়ী খাবার,ওজ্‌ন,খাবার ও পানির পাত্র।

লাইটিং প্রোগ্রাম

সিস্টেম ১

১ম দিন থেকে প্রতিদিন ১০-১৫ মিনিট করে কমাতে হবে যা ৯-১০ সপ্তাহে প্রাকৃতিক আলোতে চলে আসবে এবং তা ১৭-১৮ সপ্তাহ পর্যন্ত থাকবে.প্রাকৃতিক আলো ১২.৩০ ঘন্টা বুঝায়,শুধু দিনের আলোকে বুঝাবে না।

মুরগির ওজন ও খাবার যদি ভাল খায় তাহলে তাড়াতাড়ি মানে দিনে ১৫ মিনিট করে কমাতে হবে আর যদি ওজন ও খাবার কম খায় বা অন্য কোন সমস্যা থাকে তাহলে ধীরে ধীরে মানে ১০ মিনিট করে কমাতে হবে।।

যেমন ১ম দিন সন্ধ্যা ৭ থেকে ৭.১৫ মিনিট আলো অফ থাকবে

পরের দিন ৭-৭.৩০,৩য় দিন ৭-৭.৪৫ ৪র্থ দিন ৭-৮ টা এভাবে কমাতে হবে। এভাবে রাত ১১-১২ টা পর্যন্ত আসার পর রাত ৭টার পরিবর্তে রাত ১১ বা ১২ টায় ্লাইট অফ করতে হবে এতে রাতে সজাগ থেকে লাইট করার দরকার হয় না।

ওজন ১৫০০-১৫৫০গ্রাম(বাদামী,৮০% মুরগির) ১৩৫০গ্রাম(সাদা) হলে ১ঘন্টা আলো দিতে হবে তাহলে আলো হবে ১২.৩০+১=১৩.৩০ঘন্টা

পরে প্রতি সপ্তাহে আধা ঘন্টা করে বাড়াতে হবে যতক্ষন না দিনের আর রাতের আলো মিলে ১৫-১৬ ঘন্টা হয়।

সিস্টেম ২

৯-১২ সপ্তাহে দিনের আলতে আসার পর  শীতকালে ৫% আর গরমকালে  ১০% প্রডাকশন আসার পর ১ম বার ১ ঘন্টা আলো দিতে হবে,পরে প্রতি সপ্তাহে ৩০মিনিট করে আলো বাড়াতে হবে।

 সিস্টেম ৩

সপ্তাহে ১ঘন্টা করে কমানো যায় ১ম সপ্রাহে ২৩ঘন্টা,২য় সপ্তাহে ২২ ঘণ্টা ৩য় সপ্তাহে ২১ ঘন্টা এভাবে ১১-১২ সপ্তাহ থেকে ১২-১৩ঘন্টা যা ১৮-১৯ সপ্তাহ(যখন ওজন ১৫০০-১৫৫০ গ্রাম হয় ৮০% মুরগির) পর্যন্ত থাকবে তারপর ১ ঘন্টা আলো দিয়ে ১৪ ঘন্টা করতে হবে পরে প্রতি  সপ্তাহে আধা ঘন্টা করে বাড়াতে হবে যতক্ষণ না ১৫-১৬ ঘন্টা না হয়।

নোটঃ অনেক ফার্মে জেনারেটর না থাকায় বা কারেন্ট সব সময় না থাকায় নিয়ম অনুযায়ী করা সম্ভব হয়না।খামারী নরমালী ১-৩ মাস রাতে আল দেয় পরে রাতের আলো কমাতে থাকে যা ঠিক না।যাদের সুযোগ আছে তারা ১ম সপ্তাহ থেকে আলো কমানো উচিত।

যদি ওজন কম হয় এবং খাবার কম খায় তাহলে রাতে লাইট অফ করার ৩ঘন্টা পর
১ -১.৫ ঘন্টা আলো দেয়া উচিত তাতে প্রতি মুরগি প্রায় ৫গ্রাম খাবে.এটা ৭-৮ সপ্তাহ বয়স থেকে যে কোন সময় করা যায়.

সাধারনত

ওজন কম হলে,নখাবার কম খেলে,গরম আবহাওয়া হলে,
ডিম পাড়ার শুরুতে খাবার কম খেলে এবং পিক প্রডাকশনের সময় রাতে আলো দিয়ে খাবার দেয়া হয়.

এই আলো মূল আলোর সাথে যোগ করা যাবে না.

এই আলো বাতিল করতে হলে প্রতিদিন ১৫ মিনিট করে কমাতে হবে কিন্তু বাড়ানোর সময় এক সাথে বাড়াতে পারেন।
.
কত ওয়াট এবং কত লাক্স:

ক্যান্ডেলঃ a candle is unit of luminous intensity of a light source in a special direction । (আলোর উজ্জলতার একক যা একটা নির্দিস্ট দিক থেকে আসে

লুমেনঃlumen is defined as the rate at which light falls on a sq ft area surface which is equally distant one foot from a source whose intensity is one candela.( আলোর উজ্জলতার একক যা আলোর উৎস হতে ১ফুট ্দূরত্বে ১বর্গফুট জায়গায় ১ক্যান্ডেল আলো দেয়)

লাক্সঃলাক্স হলো আলোর উজ্জ্বলতার একক যা ১বর্গ মিটার জায়গায় ১লুমেন আলো দেয়

লাক্সঃ(A lux of light intensity is equal to one lumen per sq meter.)

১বর্গমিটার -১০.৭৬ বর্গ ফুট

ফুট ক্যান্ডেলঃ১ ফুট ক্যান্ডেল = ১লুমেন পার স্কয়ার ফুট।(১ ঘন ফুট জায়গায় ১লুমেন আলোর তীব্রতা থাকলে তাকে ১ফুট ক্যান্ডেল আলো হিসাবে গণ্য করা হয়।

1 lux =০.০৯২৯ ফুট ক্যান্ডেল

৫ফুট ক্যান্ডেল= ১০.৭৬ লাক্স

ওয়াটঃ ওয়াট হল বৈদ্যুতিক শক্তির একটি একক ।১ওয়াট থেকে ১২.৫৬ লুমেন আলোর উৎপত্তি হয়।

১ওয়াটঃ৬.১৫লুমেন

১বর্গফুট স্থান ০.২৫ ওয়াট হিসাবে ১ বর্গ মি ঃস্থানেঃ0.২৫ *১০.৭৬ঃ২.৭০ ওয়াট।তাহলে ১০.৭৬ বর্গ ফুটে ২.৭০ ওয়াট

১০০০ বর্গফুটে লাগে ২৫০ওয়াট(২৫০গুণ ১৬.৬০ঃ৪১৫০লুমেন)

২.৭০ ওয়াট ঃ২.৭০*৬.১৫ঃ১৬.৬০।

100watt :6lux

বাল্ব কত প্রকার

১।ই্নক্যানডেসসেন্ট(আগের লাল বাতি,সাধারণ আলোর বাল্ব) ১৬লুমেন/ওয়াট

ইনক্যা্নডেসসেন্ট(Incandescent) বাল্বঃ ১ওয়াট বাল্ব  ১২.৫৬ লুমেন লাইট তৈরি করে

এদেরকে ফিলামেন্ট বাতি বলা হয়।

এগুলো আলোর চেয়ে তাপ বেশি দেয়।

দামে সস্তা

ইফিকেসি কম

প্রতিফলক না দিলে আলোর অপচয় হয়।

সর্ট বাল্ব লাইফ ৭৫০-১০০০ ঘন্টা

২।ফ্লোরোসেন্ট(এনার্জি বাতি) ৫০-১০০লুমেন/ওয়াট/

৩-৪ গুণ ইফিকেসি

১০গুণ বেশি চলে

২১-২৭ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেট তাপমাত্রায় বেশি আলো দেয়।

৩।মার্কারি (গ্যাস বাতি)

৩৫-৬৫লুমেন/ওয়াট।ইফিকেসি ২৪০০০ ঘন্টা চলে।তাপমাত্রার সাথে আলোর তীব্রতার পরিবর্তন হয় না।দক্ষতা ফ্লোরোসেন্ট(এনার্জি বাতি) এর মত

৪।এল ই ডি ঃ(২০০-২২০লুমেন/ওয়াট)

এনার্জির চেয়ে ৩গুণ বেশি আলো দেয়।

৫।সোলার

size of bulbs:1 bulb watt for each 4sq ft of floor space to provide 1 fc(10lux) of light.when have good reflector and 7-8 ft above from floor.

এনার্জি ২৩-৩০ওয়াট,এল ই ডি ৭-১৪ ওয়াট ভাল

৬০ওয়াটের বেশি বাল্ব ব্যবহার করা ঠিক না,এতে আলোর ইউনিফর্মিটি থাকে না এবং বিদ্যু খরচ বেশি হয়।

১ওয়াট বাল্ব ৪বর্গফুট জায়গায় ১ফুট ক্যান্ডেল মাত্রায় আলোকিত করতে পারে।

২৫ ওয়াটের ১টি বাল্ব ২৫*৪ঃ১০০ বর্গফুট যায়গায় আলো দিতে পারে।

বাতি ব্যবস্থাপনা

১।মুরগি মেঝেতে পালন করলে মেঝে থেকে যত উপরে বাল্ব স্থাপন করা হবে তার দেড়গুণ দূরে অন্য বাল্ব স্থাপন করতে হবে।যেমন ৬ফুট উচুতে বাল্ব স্থাপন করলে অন্য বাল্ব দিতে হবে ৯ফুট দূরে.১২ ফুটের বেশি দূরে বাল্ব দেয়া যাবে না।

২।ঘরে যত ওয়াটের বাল্ব ব্যবহার করা হবে তার ১/৪ দূরে অন্য বাল্ব দিতে হবে।

যেমন ৬০ওয়াটের বাল্ব দিলে ৬০/৪ঃ১৫ফুট দূরে অন্য বাল্ব দিতে হবে।

৩।যদি একাধিক সারিতে বাল্ব দিতে হয় তবে বাল্ব আঁকাবাঁকা মানে z এর মত করে দিতে হবে যাতে সবাই আলো পায়।

এ ক্ষেত্রে পাশের দেয়াল থেকে বাল্বের দূরত্ব পাশাপাশি ২বাল্বের দূরত্বের অর্ধেক হবে।ওয়াল থেকে বাল্বের দূরত্ব ৬ফুট ।

৪।ফিলামেন্ট বাতি ব্যবহার করলে প্রতিফলক দেয়া ভাল

৫।২০ওয়াটের  ফ্রোরোসেন্ট বাতি ৬০ওয়াটের ফিলামেন্ট বাতির সমান।২০ ওয়াটের ফ্লোরোসেন্ট বাতি ৭ওয়াটের এল ই ডির সমান।

৬।বাতি ঝুলিয়ে দেয়া উচিত না,এতে বাতি বাতাসের কারণে দোলতে থাকে এবং মুরগি ভয় পায়।

৭.১ফুট ক্যান্ডেল বা ১০ লাক্স  আলোক উজ্জ্বলতার জন্য ৭-৮ফুট উচ্চতায় ৬০ওয়াটের ১টি বালব ৪বর্গফুট ্জায়গায় আলো দিতে পারে।

১০ লাক্সের ক্ষেত্রে ১ওয়াট ৪ বর্গফুট এবং ২০ লাক্সের ক্ষেত্রে ২ বর্গফুট জায়গায় ব্যবহার হয়।

৮।আলোর উৎস দ্বিগুণ হলে আলোর প্রখরতা ১/৪ হয়ে যায়।প্রতিফলক দিলে আলোর তীব্রতা ৫০% বেড়ে যায়

ব্রয়লারে ১ঘন্টা অন্ধকার রাখলে মুরগি শান্ত থাকে ওজন ভাল আসে।

নোটঃ

100watt :6lux

নিচের কিছু পয়েন্ট বিভিন বই এ আছে কিন্তু সব মিলে না তবে কিছু ঠিক আছে।

লেয়ারে প্রডাকশন মুরগির ক্ষেত্রে

২৪০ বর্গ ফুট জায়গায় জন্য ৬০ওয়াটের ১টি বাল্ব ৭ফুট উপরে,১০ফুট দূরে।

১ফুট ক্যান্ডেল/১০লাক্সের জন্য ৭-৮ফুট উপরে ১টি ৬০ওয়াট ৪ বর্গ ফুট জায়গার জন্য

৬০ ওয়াট ঃ১০লাক্সঃ৪বর্গ ফুট

৬০ ওয়াটঃ২০লাক্সঃ২ বর্গ ফুট

গ্রোয়িং পিরিয়ডে ১ ওয়াট ১ বর্গ ফুটজায়গার জন্য

ডিম পাড়া মুরগিতে ০.৫ ওয়াট ১বর্গ ফুট জায়গার জন্য

অথবা

৬০ ওয়াট ১২০ বর্গ ফুট জায়গার জন্য(টিউব বাল্ব)

অথবা

দেড় বর্গ ফুট জায়গার জন্য ১ওয়াট।

ব্রয়লার বাচ্চা

৯-১২ ওয়াটের এল ই ডি ৭-৮ফুট উপরে দিলে ২০লাক্স হবে ১টা ব্রুডারে।

অথবা

২০০ বর্গ ফুট জায়গার জন্য ৪০ ওয়াট

৭দিন পর ১০০ বর্গফুট জায়গার জন্য ৪০ ওয়াট

১০লাক্সঃ ১ ওয়াটঃ ৪ বর্গ ফুট( ১০০০ বর্গ ফুটের জন্য ২৫০ওয়াট)

২০ লাক্সঃ১ ওয়াটঃ ২ বর্গ ফুট( ১০০০ বর্গ ফুটের জন্য ৫০০ওয়াট )

100watt :6lux

আলোর প্রভাবঃ

আলো> চোখের নার্ভ>হাইপোথ্যালামাস> অগ্রপিটোইটারী গ্রন্থি>স্টিমুলেশন ফর ফলিকল>ওভুলেশন।

lumens of light from white incandescent and fluorescent bulbs

bulbs  watts                     incandescent bulbs lumen       fluorescent bulbs lumens

25                                            225                                         800-1000

40                                            43o                                         2000-2500

60                                           810                                           3200

100                                          1600                                      6400

200                                          3500                                     10000-12000

১ ওয়াট সমান প্রায় ৮লুমেন(লাল বাতি) আবার এনার্জি বাতির ক্ষেত্রে প্রায় ৩২লুমেন।

Dirty bulbs :very dirty bulbs will emit about 1/3 less light than clean bulbs.

প্রতিফলকঃ বাল্বের উপর প্রতিফলক দেয়া উচিত যাতে আলো নিচের দিকে সব খানে সমভাবে যায় এবং ১৪দিন পর পর বাল্ব পরিস্কার করা উচিত।এতে ৫০% আলো বেশি পাবে।

যদি না করা হয় তাহলে নিচের মত অবস্থা হবে।

type of bulb and reflector                     equivalent light intensity

clean bulb,clean reflector                        60watt

clean bulb,no reflector                            40watt

dirty bulb ,dirty reflector                         30watt

dirty bulb no reflector                            25watt

কালারের সাথে মুরগির সম্পর্ক ঃ

আইটেম                                          লাল        কমলা        হলুদ         সবুজ      নীল

improve growth                                                                          yes       jes

depresses feed efficiency                                           yes          yes

lowers age at sexual maturity                                                  yes       yes

increases age at sexual maturity    yes      yes         yes

enlarged eye                                                                                              yes

reduces nervousness                 yes

lowers cannabolism             yes                                                              yes

increases egg production       yes        yes

lowers egg production                                               yes

increases egg size                                                       yes

improve male fertility                                                 yes                        yes

lowers male fertility               yes

ফ্লোরোসেন্ট লাইট সবচেয়ে ভাল।

২০০০মুরগির ক্ষেত্রে
সেডের প্রস্থ যদি ২৪ ফুট
এবং লম্বায় যদি ৯২ ফুট হয়

তাহলে
খাচার ক্ষেত্রে
বালবের লাইন হবে ৩টি,উভয় ওয়াল থেকে ৪ফুট ভিতরে ২টি লাইন এবং ২টি লাইনের মাঝে ১টি.
প্রতি লাইনে ৮টা করে ৩ লাইনে ২৪টি(৩০ ওয়াটের)

প্রতিটি বালব ফ্লোর থেকে ৭ফুট উপরে হবে সেট করতে হবে.

আর ফ্লোরের ক্ষেত্রে
২ওয়াল থেকে ৬ফুট ভিতরে ২টি লাইন
২লাইনে ১০ ফুট দূরে দূরে বালব।

সবই হবে ফ্লোর থেকে ৭ ফুট উপরে.
সব ৩০ ওয়াটের এনার্জি বালব ধরে হিসেব করা হয়েছে.

প্রতি বর্গ মিটারে কত ওয়াট বালব দিলে কত লাক্স পাওয়া যায় এবং কোন বয়সে কত লাক্স দিতে হবে তা নিম্নে দেয়া হল:

১বর্গমিটার -১০.৭৬ বর্গ ফুট

সপ্তাহ    ওয়াট/বর্গ মি:       লাক্স

১ম             ৬                     ৩৫
২-৩          ২.৭               ১৬.৬০
৪-১০         ২                ১২.৩৭
১১-১৬       ১                  ৬.১৫
১৭-২০      ২                 ১২.৩০
২০ এর পর ২.৭            ১৬.৬০

100watt :6lux

বয়স wattper 1000sqft

এনার্জি বাল্বের হিসাব ধরে

১ম সপ্তা          588

২-৩ সপ্তা       251

৪-১০ সপ্তা       186

১১-১৬সপ্তা      93

১৭-২০ সপ্তা  186

২০-বিক্রি       251

কম বয়সে কম লাক্স দিলে মুরগি খাবার কম খাবে এবং ওজন কম হবে আবার মাঝ বয়সে লাক্স বেশি দিলে অল্প বয়সে ডিম পাড়বে এবং পরবর্তিতে প্রলাপ্স হবে,বেশিদিন ডিম পাড়বেনা.

ডিম আসার সময় লাক্স কম দিলে ডিম কম পাড়বে.

কালার বার্ড হলে১৬-১৭ ঘন্টা লাইট দিলেই হবে।

খাবার কোন বয়সে কত দিতে হয়

১ম সপ্তাহে ১১গ্রাম

প্রতি সপ্তাহে ৬ গ্রাম করে বাড়াতে হবে ৫ সপ্তাহ পর্যন্ত।

৬ সপ্তাহ থেকে ১ টি সূত্র অনুসরণ করলে সহজে মনে রাখা যায়.
সপ্তাহ * ৪+২০ = খাবার(বাদামী)
সপ্তাহ * ৪+১০ সমান খাবার (সাদা)

৬সপ্তাহে খাবার খাবে
৬*৪+২০ :৪৪গ্রাম
৭সপ্তাহে
৭*৪+২০:৪৮গ্রাম
সাদা মুরগি হলে
৭*৪+১০:৩৮ গ্রাম

১২ সপ্তাহে ১২*৪+২০=৬৮গ্রাম

১৩ সপ্তাহে ১৩*৪+২০ঃ৭২গ্রাম

১৪ সপ্তাহে ৭৬গ্রাম

১৫ সপ্তাহে ১৫*৪+২০ঃ৮০ গ্রাম

১৬-১৯ সপ্তাহ পর্যন্ত প্রায় একই পরিমাণ খাবার খায় মানে ৮০ -৮৫গ্রাম ( ১৬,১৭,১৮ ,১৯  সপ্তাহে হরমোনাল পরিবর্তন হয় তাই কম খামার খায় যেমন মেয়েরা প্যাগন্যান্ট অবস্থায় খাবার কম খায়।অনেক খামারী এই সময় খাবার কম খেলে মন খারাপ করে অথচ এটা খুশির খবর )

২০ সপ্তাহে ২০*৪+২০=১০০গ্রাম

এভাবে ২৫ সপ্তাহ পর্যন্ত
২৫সপ্তাহে খাবার খাবে
২৫*৪+২০:১২০ গ্রাম
পিক প্রডাকশনের সময় ১১০-১২০গ্রাম খাবার খাবে.

১৯-২৬ সপ্তাহ পর্যন্ত কত সপ্তাহে কত গ্রাম খাবার খাবে তা প্রডাকশনের উপর নির্ভর করে।প্রডাকশন বেশি হলে খাবার বেশি খাবে।

প্রডাকশনের সময় খাবার কতটুকু খাবে তা নির্ভর করে কাল( শীত,গীষ্ম),খাবারের মান ও মুরগির ব্যবস্থাপনা বা অন্য কোন সমস্যার উপর।

খাবারের মান যদি ভাল হয় তাহলে ১১০ খেয়েই ভাল ডিম দিবে আবার খাবারের মান খারাপ হলে মানে প্রোটিন ও এনার্জি  যদি কম হয় তাহলে বেশি খাবার খাবে ১২৫-১৩০ গ্রাম খেতে পারে।

ব্যবস্থাপনা ভাল হলেও কম খাবার খেয়ে মানে ১১০ গ্রাম খেয়ে ভাল ডিম দিবে।

অধিকাংশ সময় ১৬-২০ সপ্তাহে মুরগি কম খায় কারণ এই সময় তাদের প্রজননতন্ত্রের দ্রুত উন্নতি ঘটে এবং হরমোনাল পরিবরতন হয় ।তাই কম খাবার খেলে চিন্তার কোন কারণ নাই, পরে ঠিকই খাবার খাবে এবং ভাল ডিম পাড়বে.

তবে বাচ্চা অবস্থায় যদি লেয়ারকে ব্রয়লার খাবার মানে হাই এনার্জি খাবার বেশি খাওয়ানো হয় তাহলে ১৬ সপ্তাহের পর মুরগি কম খাবার খাবে।কারণ হাই এনার্জি খাবার দিলে ইন্টেসস্টাইনের ডেভেলপমেন্ট কম হয়,ভিলাই এর গ্রোথ ভাল হয় না।

কতবার খাবার দিতে হবে

বাচ্চা আনার পর পেপারে ২-৩ ঘন্টা পর পর খাবার দিতে হবে মানে সব সময় যাতে চোখের সামনে খাবার থাকে।

১ দিন পর ৪ ঘন্টা পর পর

৩ দিন থেকে খাবার পাত্রে   ৬ ঘন্টা পর পর ৭ দিন

২য় সপ্তাহ থেকে  দিনে ৩ বার ৭ সপ্তাহ পর্যন্ত

৮ সপ্তাহ থেকে মুরগি বিক্রি করার আগ পর্যন্ত দিনে ২ বার খাবার দিতে হবে।

দুপুরবেলা ১২-২ টা পর্যন্ত খাবার পাত্র খালি রাখতে হবে যাতে খাবার তাড়াতাড়ি খায় এবং গুড়া না থাকে

এতে মুরগি ছোট -বড় হবেনা  এবং এদের ক্রপ ও গিজার্ড বড় হবে ।

খাবার পাত্র ও পানির পাত্র;

১ম সপ্তাহে ১০০ বাচ্চার জন্য ১ টা করে খাবার পাত্র ও পানির পাত্র দিতে হবে

পরে প্রতি সপ্তাহে ১০০ পাখির জন্য ১০ দিন পর পর ১ টা করে বাড়াতে হবে মানে

সহজে মনে রাখার জন্য

১০দিন পর্যন্ত ৫০০মুরগির জন্য ৫টা

২০দিনে ১০টা

৩০সিনে ১৫টা

৪০দিনে ২০টা

৫০দিনে ২৫টা

৬০দিনে ৩০টা

৭০দিনে ৩৫টা

তাহলে ১০০০ এর জন্য লাগবে ৩৫গুণ ২ঃ৭০টা মোট

কয়টা মুরগির জন্য কয়টা পাত্র দিতে হবে তা নির্ভর করে পাত্রের সাইজের উপর ও মুরগির বয়সের উপর।

আর কেউ যদি ফ্লোরে বা মাচায় মুরগি পালে

৬০ দিনে ১৪ টার জন্য ১টা এবং তা বিক্রির আগ পর্যন্ত থাকবে তবে

৭০ দিনে ১২ টার জন্য ১টা দিলে ভাল হয়।

পানির পাত্র

১৫দিন পর্যন্ত ৫০০ জন্য ৫টা

৩০দিনে ১০টা

৪৫দিনে ১৫

৬০দিনে ২০

৭৫দিনে ২৫

তাহ্লে ১০০০ মুরগির লাগবে ৫০টা

মাচায় বা ফ্লোরে পাললে

৬০ দিনে ২০ টার জন্য ১টা

কোন বয়সে ওজন কত হবে

জিরো দিন ৩৫-৩৮গ্রাম( জিরো দিনে যে ওজন ১ম সপ্তাহে তার দ্বিগুণ ,২য় সপ্তাহে তার দিগুণ,৩ সপ্তাহে সপ্তাহে প্রায় তার  দ্বিগুণ)

১ম সপ্তাহ। ৬৫-৭০গ্রাম (বাদামী)
২য় সপ্তাহ। ১২০গ্রাম

৩য় সপ্তাহে ২০০গ্রাম

৩য় সপ্তাহ থেকে১টি সূত্র মনে রাখলে সহজে বের করা যয়;

বয়স যত ওজন তার থেকে ১০০গ্রাম কম
(প্রতি সপ্তাহকে ১০০গ্রাম ধরে)
৩-৯সপ্তাহ পর্যন্ত প্রতি সপ্তাহ থেকে ১০০ গ্রাম কম মানে মাইনাস করতে হবে।
৩য় সপ্তাহে ২০০গ্রাম
৪থ সপ্তাহে ৩০০(২৯০)
৫ম। ৪০০(৩৯০)
এভাবে ৯ সপ্তাহ পর্যন্ত
৯ সপ্তাহে হবে ৮০০(৭৯০)

১০-১১ সপ্তাহের ক্ষেত্রে ১৫০গ্রাম কম
১০ সপ্তাহে ৮৫০গ্রাম
১১ সপ্তাহে ৯৫০গ্রাম

১২-১৬ সপ্তাহের ক্ষেত্রে ২০০গ্রাম কম
১২ সপ্তাহে ১০০০গ্রাম(১০৩৫)

১৭-১৮ সপ্তাহের ক্ষেত্রে ২৫০গ্রাম কম
১৭ সপ্তাহে ১৪৫০
১৮ সপ্তাহে ১৫৫০গ্রাম

২৪ সপ্তাহে ১৮৫০গ্রাম মানে( ১৮-২৪) ৬ সপ্তাহে ৩০০গ্রাম তাহলে প্রতি সপ্তাহে ৫০গ্রাম করে ওজন বাড়াতে হবে.

তারপর প্রতি সপ্তাহে ১০ করে বাড়বে৫০ সপ্তাহ পর্যন্ত.

বিক্রির সময় ওজন হবে ২০০০-২২০০গ্রাম ৯০-১০০ সপ্তাহ বয়সে.

এই পদ্ধতিগুলো আমার নিজের তৈরি অনেকে নিজের নামে বিভিন্ন গ্রুপে দিতে দেখেছি উচিত ছিল কার্টেসি দেয়া

বাতি/বাল্ব ব্যবস্থাপনা কিসের উপর নির্ভর করেঃ
কখন, কোথায় কত ওয়াট এর বাল্ব,কি ধরণের বাল্ব দিতে হবে কত দূরে,উচ্চতায় দিতে হবে তা নিচের বিষয় গুলোর উপর নির্ভর করে।
 ১।বয়সঃ ব্রুডিং,গ্রোয়ার,লেয়ার(প্রডাকশন)
ব্রুডিং এ তাপ ও আলো ২টিই লাগে ব্রুডিং এ ৩০-৩৫ লাক্স আর গ্রোয়ারে ৬-১২লাখ,প্রডাকশনে ১০লাক্স দিতে হয়। ,গ্রোয়াইং এবং প্রডাজশনের ক্ষেত্রে শুধু আলো দিলেই হবে।তাপ লাগে না।তাই এনার্জি ,সোলার,এল ই ডি ব্যব হার করলেই হবে।
২।বাল্বের ধরণ,লাক্স ও ওয়াট(সোলার,এনার্জি।এল ই ডি।লাল।টিউব,আই পি এস)
একেক বাল্বের আলোর তব্রতা একেক রকম যেমন এনার্জি বাতি লাল বাতি থেকে ৪গুণ বেশি আলো (লুমেন)দেয়,আবার এল ই ডি বাতি এনার্জি বাতি থেকে ৪গুণ বেশি আলো(লুমেন) দেয় তাই এনার্জি যদি ২৩ওয়াট লাগে এল ই ডি লাগবে ৬ওয়াট।মানে ৩০৪গুণ কম লাগে।
সোলার বাতিতে আলো হয় কিন্তু তাপ হয় না।তাই ব্রুডিং কাজে লাগে না।লাল বাতিতে আলোর পাশাপাশি তাপ হয় তাই ব্রুডিং কাজে লাগে ।এল ই ডি ও এনার্জিতে ও তাপ হয় না।
৩।খাচা বা মাচা,লোহার খাচা বা বাশের খাচা।
খাচায় মুরগি থাকলে উপরে বেশি আলো পায় আবার নিচে কম পায়।আলোর তীব্রতা বেশি দিয়ে হয়।বাশের খাচায় অন্ধকার বেশি থাকে আলো কম পায়।লোহার খাচায় আলো বেশি পায়,খোলা মেলা থাকে।মাচা বা ফ্লোরে হলে মুরগি ছাড়া ছাড়া থাকায় আলো এক জায়গায় কম হলেও অন্য জায়গায় থেকে আলো পেতে পারে কিন্তু খাচায় কোন জায়গায় বাল্ব না থাকলে সেখানে ডিম কম পাড়বে বা খাবার কম পাবে।ফ্লোরে আলোর তীব্রতা বেশি থাকে কারণ যেহেতু খাচা থাকে না।
৪।সেডের ধরণ ও উচ্চতা,প্রস্থ(ওপেন জাউজ,কন্টোল বা সেমি কন্টোল)
ওপেন হাউজে দিনের বেলা বেশি আলো পায় যা দরকার নাই আবার রাতের বেলা কম আলো পায় ।কন্টোল বা সেমি কন্টোল হাউজে এই সমস্যা হয় না।
৫।আবহাওয়া,সিজন,রোগ ব্যাধি,ওজন
শীতের সময় তাপের ঘাটতি হয়,তাছাড়া শীতের সময় দিনের আলো কম হওয়ায় রাতের বেলা বেশি করে আলো দিতে হয়।আলো ও তাপের কারণে ওজন কম বেশি হয় ।
৬।তাপ বা আলো
আমরা সবাই আলো ও তাপকে এক সাথে গুলিয়ে ফেলি.২টি আলাদা বিষয় এবং আলাদা ভাবে ম্যানেজ করতে হয় কিন্তু আমরা সবাই বাল্ব দিয়েই আলো ও তাপের ব্যবস্থা করার চেস্টা করি,বাল্ব দিয়ে আলো হয় তাপ হয়না।
৭।খরচ
আমাদের দেশে শীতের সময় খামারীরা খরচের জন্য গ্যাস ব্রুডার দিতে পারে না তাছাড়া লাল বাতি দিল ও অনেক বিল আসে যাঢ় জন্য পর্যাপ্ত বাতি দেয় না।
৮।বাল্বের প্রতিফলক,পরিস্কারকরণ
বাল্বে প্রতি ফলক দিলে আলোর তীব্রতা ৪গুণ বেড়ে যায় কিন্তু কেউই তা দেয় না।তাছাড়া বাল্ব ১৫দিন পর পর  পরিস্কার করে দিলে ২৫% আলো বেড়ে যায়
৯।স্পিসিস/ব্রিড
একেক স্পিসিসের আলো কমে বেশি হতে পারে।
১০।কালার
বাতির কালারের উপর মুরগির চঞ্চলতা,ঠোকরা ঠুকরি ,প্রডাকশন ,ওজন নির্ভর করে
১১।ভোল্টেজ

আমরা ওয়াট ঠিক মত দিলেও ভোল্টেজ না থাকলে আলো হবে না।প্রতি বর্গ মিটারে কত ওয়াট বালব দিলে কত লাক্স পাওয়া যায় এবং কোন বয়সে কত লাক্স দিতে হবে তা নিম্নে দেয়া হল:

১বর্গমিটার -১০.৭৬ বর্গ ফুট

সপ্তাহ    ওয়াট/বর্গ মি:       লাক্স

১ম             ৬                     ৩৫
২-৩          ২.৭               ১৬.৬০
৪-১০         ২                ১২.৩৭
১১-১৬       ১                  ৬.১৫
১৭-২০      ২                 ১২.৩০
২০ এর পর ২.৭            ১৬.৬০

100watt :6lux

বয়স wattper 1000sqft

এনার্জি বাল্বের হিসাব ধরে

১ম সপ্তা          588

২-৩ সপ্তা       251

৪-১০ সপ্তা       186

১১-১৬সপ্তা      93

১৭-২০ সপ্তা  186

২০-বিক্রি       251

 এর চেয়ে বেশি আলোচনা আর কোথাও নাই অনেক বই ।লিটারেচার থেকে মিলিয়ে করেছি।
  ওয়াট কম বেশি করে বাল্বের সংখ্যা কম বেশি করা যায় বা করতে হয়।
Please follow and like us:

About admin

Check Also

শীতকালের ব্যবস্থাপনা এবং সমস্যা/সমাধান

শীতকালের ব্যবস্থাপনা এবং সমস্যা/সমাধান অন্যান্য সময় থেকে শীতের পার্থক্য কোথায়। পার্থক্য হল তাপ,পর্দা ও পর্দা …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Translate »
error: Content is protected !!