লেয়ারের লাইটিং সিডিউল(শর্টকাট)

 লেয়ারেরর লাইটিং সিডিউল(শর্টকাট)

১ম দিকে লাইট ২৪ ঘন্টা থাকে। পরে কমানো হয়।ডিম পাড়ার আগে আবার বাড়ানো হয়।

১ম সপ্তাহ ২৪ ঘন্টা

২য় সপ্তাহ থেকে প্রতি সপ্তাহে ১ ঘন্টা করে কমানো হয়

২য় সপ্তাহে ২৩ ঘন্টা  সন্ধ্যা ৬-৭টা ১ঘন্টা  লাইট বন্ধ।

৩ সপ্তাহে ২২ ঘন্টা ,রাত ৬-৮টা ২ ঘন্টা বন্ধ

৪ থ সপ্তাহে  ২১ঘন্টা, রাত ৬-৯টা ৩ ঘন্টা বন্ধ

৫ম সপ্তাহে ২০ঘ ন্টা।রাত ৬-১০টা ৪ ঘন্টা বন্ধ

৬ম সপ্তাহে ১৯ঘ ন্টা,রাত ৬-১১টা ৫ঘন্টা বন্ধ

৭ম সপ্তাহে  ১৮ ঘন্টা ,রাত৬-১২ টা ৬ ঘন্টা বন্ধ

৮ম সপ্তাহে উলটে যাবে মানে রাত ১২টা পর্যন্ত লাইট চলবে, রাত ১২টার পর থেকে বাতি বন্ধ থাকবে( রাত ১২টার পর কোন বাতি জ্বলবে না)

এই সময় কয়েকদিন পানিতে প্রবায়োটিক বা ম্লাটিভিটামিন বা ইমোনোস্টীমুলেটর দিলে ভাল হয়।

৯ম সপ্তাহে রাত ১১টা থেকে বাতি বন্ধ সারারাত

১০ সপ্তাহে রাত ১০টা থেকে বন্ধ সারারাত

১১ তম সপ্তাহে রাত ৯টা থেকে বাতি বন্ধ সারারাত

১২ সপ্তাহে  রাত৮টা থেকে বাতি বন্ধ সারারাত

১৩ সপ্তাহ থেকে ৭টার পর বাতি থাকবে না সারারাত

নোটঃ

১ম সপ্তাহে যদি ২৩ ঘ ন্টা আলো দেয়া হয় তাহলে ১২ সপ্তাহে সব লাইট বন্ধ হয়ে যাবে।আমি ২ সপ্তাহ থেকে বন্ধ করেছি তাই ১৩ সপ্তাহে চলে আসছে)

বিভিন্ন কোম্পানী নিয়ম ও মুরগির ওজন বিবেচনা করে ৫ দিন পর পর লাইট বন্ধ করে ১০ সপ্তা বা ১১  সপ্তা বা ১২সপ্তাহেও দিনের আলোতে নিয়ে আসা যাবে।যদি ওজন ভাল আসে তাহলে আমরা তাড়াতাড়ি দিনের আলোতে নিয়ে আসবো।

যদি ওজন কম হয় এবং খাবার কম খায় তাহলে রাতে লাইট অফ করার ৩ঘন্টা পর
১ -১.৫ ঘন্টা আলো দেয়া উচিত তাতে প্রতি মুরগি প্রায় ৫গ্রাম খাবে.এটা ৭-৮ সপ্তাহ বয়স থেকে যে কোন সময় করা যায়.

বার লাইট বাড়াতে হবে কিন্তু কখন ?সেটাই নিচে আলোচনা করা হয়েছে।

লাইট বাড়ানোর নিয়ম ২টি(যে কোন একটি মানলেই হবে,২টি মানার দরকার হবে না)

১।ওজন দেখে

৮০% মুরগির (লাল )লেয়ারের ওজন যদি ১৫০০-১৫৫০গ্রাম  হলে(সাদা ১৩৫০গ্রাম)

২।প্রডাকশন দেখে

শীতকালে প্রডাকশন ৫% আর গরমকালে ১০% হলে

এই ওজন ও প্রডাকশন কত সপ্তাহে হয়?

উত্তর ১৯-২১ সপ্তাহে(লাল মুরগি)।সাদা ১৭-১৮ সপ্তাহে

যখন এই ওজন বা প্রডাকশন হবে তখন ১ঘন্টা আলো দিতে হবে,পরে প্রতি সপ্তাহে ৩০মিনিট কর বাড়াতে হবে যত ক্ষণ না ১৫-১৬ ঘন্টা হয়।

যেমন রাত ৬ – ৭টা পর্যন্ত,পরের সপ্তাহে রাত ৬-৭.৩০টা।পরের সপ্তাহে ৬-৮টা,পরের স্পতাহে ৬-৮.৩০।দরকাল হলে পরের সপ্তাহে ৯টা পর্যন্ত বা ৯.৩০ পর্যন্ত আলো দিতে পারেন।

দিনের আলো যদি ১৩ ঘ ন্টা হয় তাহলে রাতে ৩ঘ ন্টা দিয়ে ১৬ঘ ন্টা করতে হবে বা আড়াই ঘ ন্টা দিয়ে ১৫.৩০ ঘ ন্টা বা ২ ঘ ন্টা দিয়ে ১৫ ঘ ন্টা করতে হবে।

দিনের আলো যদি ১২ ঘ ন্টা হয়( শীতের সময়) হয় তাহলে রাতে ৩-৪ ঘ ন্টা দিয়ে ১৫-১৬ ঘ ন্টা করতে হবে।

 

টোটাল লাইট ১৫ঘণ্টা বা ১৫.৩০ঘন্টা বা ১৬ ঘণ্টা হল দিনের আলো(১১ ঘ ন্টা বা ১২ ঘ ন্টা  বা ১৩ ঘন্টা+রাতের আলো ৫ ঘ ন্টা বা ৪ঘ ন্টা বা ৩ ঘ ন্টা)

নোটঃশীতকালে দিনের আলো ১১-১২ ঘন্টা হয় আবার গরম কালে দিনের আলো ১২.৩০-১৩ ঘন্টা হয়।

যেখানে কারেন্ট সব সময় না থাকে বা জেনারেটর না থাকে সে ক্ষেত্রে এভাবে করা যায় না।তবু চেস্টা করতে হবে।

 

ডা মো সোহরাব হুসাইন

ট্রেইনার (ভেট ট্রেনিং স্কুল)

ট্রেইনার(পোল্ট্রি খামারী গ্রুপ)

এডমিন এবং এডিটর(www.poultrydoctorsbd.com)

Please follow and like us:

About admin

Check Also

শেড জীবাণুমুক্তকরণ পদ্ধতি

.শেড জীবাণুমুক্তকরণ #শেডের উপর হতে নিচ পর্যন্ত পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে এবং মেঝে,সিলিং,নেট,দরজা,ফ্যান,জানালা,পর্দা ইত্তাদি. #ঘরের ...

Translate »
error: Content is protected !!