Breaking News

মুরগি,গরু ও খাসির মাংসের পুস্টিগুণ

মুরগি, গরু নাকি খাসির মাংস????আমরা অনেকেই আছি যারা মুরগির মাংস পছন্দ করি আবার অনেকেই গরু বা খাসির মাংস। কিন্তু দাম ও পুষ্টিগুন অনুসারে কোনটা আমাদের জন্য উপকারি আজকে কয়েকটি পুষ্টিগুন কে ভিত্তি করে পর্যালোচনা করার চেষ্টা করছি।।।।প্রোটিন-শরীরের প্রতিটি কোষে প্রোটিন থাকে। তাই আমাদের স্বাস্থ্য রক্ষায় প্রোটিন খুবই গুরুত্বপুর্ন। প্রোটিন শরীরের টিস্যু ও মাংস তৈরিতে সাহায্য করার পাশাপাশি হরমোন ও এনজাইম তৈরি করে, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় ও এনার্জি দেয়।প্রতি ১০০ গ্রাম খাসির মাংসে প্রোটিন থাকে ২৫ গ্রাম, গরুর মাংসে ২৬ গ্রাম আর মুরগির মাংসে থাকে ২৭ গ্রাম।ফ্যাট-শরীরে এনার্জি সাপ্লাই করে, টিস্যু গ্রোথ এ সহায়তা করে। একেবারে ফ্যাটলেস হওয়া ভাল না কারন শরীরের বিশেষ প্রয়োজনে এটা কাজে লাগে।ফ্যাট ২ প্রকার-১। স্যাচুরেটেড- খারাপ ফ্যাট২। আনস্যাচুরেটেড- ভাল ফ্যাট।প্রতি ১০০ গ্রাম খাসির মাংসে ফ্যাট থাকে ২১ গ্রাম যার মধ্যে স্যাচুরেটেড ফ্যাট ৯ গ্রাম।। গরুর মাংসে আছে ১৫ গ্রাম, স্যাচুরেটেড ৬ গ্রাম। মুরগির মাংসে ফ্যাট আছে ১৪ গ্রাম যার মধ্যে স্যাচুরেটেড ফ্যাট মাত্র ৩ গ্রাম।কোলেস্টেরল-হরমোন তৈরিতে সাহায্য করে, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানো সহ আরো অনেক কাজ করে।কোলেস্টেরল ৩ প্রকার-১। এলডিএল (খারাপ)-বেশি হলে করোনারি আর্টারি রোগের সম্ভাবনা বেড়ে যায়।২। এইচডিএল (ভাল)- এলডিএল কে খেয়ে থাকে।৩। ট্রাইগ্লিসারাইড- রক্তের ফ্যাট। বেশি হলে খারাপ।প্রতি ১০০ গ্রাম খাসির মাংসে কোলেস্টেরল থাকে ৯৭গ্রাম, গরুর মাংসে ৯০গ্রাম আর মুরগির মাংসে ৮৮ গ্রাম।ভিটামিন বি১২ এবং আয়রন-লোহিত রক্তকনিকা তৈরি করে, ব্রেইন ও স্নায়ু কোষ তৈরিতে সহায়তা করে।প্রতি ১০০ গ্রাম খাসির মাংসে বি১২ থাকে ৪৩%, গরুতে ৪৩%, মুরগিতে থাকে ৫%। আয়রন থাকে খাসিতে ১০%, গরুতে ১৪%, মুরগিতে ৭%।বাকি উপাদান যেমন সোডিয়াম, পটাসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, ক্যালসিয়াম মোটামুটি কাছাকাছি পরিমানে থাকে।পুষ্টিগত দিক দিয়ে যেহেতু গরু ও খাসির মংসে বি১২ ও আয়রন বেশি তাই যারা রক্তশুন্যতায় ভুগছেন এবং হার্ট রিলেটেড কোন সমস্যা নাই তারা এগুলা খেতে পারেন। আর এই গ্রুপ সহ সকলেই মুরগির মাংস খেতে পারেন।এবার দেখি আর্থসামাজিক অবস্থা চিন্তা করে আমাদের দেশের সব শ্রেনির মানুষের জন্য শরিরের চাহিদা পুরনে কোনটা ভাল। মানুষের প্রতিদিন ০•৮ গ্রাম প্রোটিন প্রতি কেজি দৈহিক ওজনের জন্য প্রয়োজন। যদি গড় ৭০ কেজি ওজনকে স্ট্যান্ডার্ড ধরা হয় তাইলে প্রতিদিন প্রোটিন লাগে ৫৬ গ্রাম। যা খাসির মাংস থেকে পেতে গেলে গুনতে হবে প্রায় ২০০ টাকা@৯০০টাকা/কেজি। গরুর মাংস থেকে পেতে লাগবে প্রায় ১৫০টাকা@৭০০টাকা/কেজি। আর মুরগি থেকে পেতে গেলে লাগবে মাত্র ৬০টাকা@১৭০টাকা/কেজি( ব্রয়লার)। যদিও মুরগির (ব্রয়লার) দাম সবসময় এত থাকে না আরো কম থাকে। কিন্তু যেহেতু অন্যান্য মংসের তুলনায় কম খরচে সব শ্রেনির মানুষের প্রোটিন এর চাহিদা পুরন করছে ব্রয়লার মুরগি তাই এদের উতপাদক রা যাতে টিকে থেকে আমাদের মুল্যবান এই প্রোটিন সোর্স সরবরাহ বজায় রাখতে পারেন তার জন্য তারা যেন সারা বছর নুন্যতম ১৬০-১৭০ টাকা/কেজি পায় তার ব্যাবস্থা করা দরকার। তাতেও আমাদের চাহিদা পুরন করতে ৭০ টাকার বেশি গুনতে হবে না।বি:দ্র: পুষ্টিমান গুলো USDA এর সোর্স থেকে নেয়া। আর প্রোটিন এর চাহিদা পুরনে শুধু মাংসের হিসাব ধরা হয়েছে।ধন্যবাদ।ডা: সানাউলডিভিএমএসিআই গোদরেজ-পোল্ট্রি

Please follow and like us:

About admin

Check Also

বইঃসহজ ও আধুনিক পোল্ট্রি ব্যবস্থাপনা এবং পোল্ট্রি শিল্প(লেয়ার,ব্রয়লার ওসোনালী)।বইটি কেমন জানতে ভিজিট করুন

আমরা এই ব্লগে পোল্ট্রির উপর শত শত আর্টিকেল পড়েছি,সেই গুলোকে সহজ করে সাজিয়ে বই বের …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Translate »
error: Content is protected !!