Breaking News
টার্কির পক্স
টার্কির পক্স

টার্কির পক্স

টার্কির পক্সঃ
এটি  আস্তে আস্তে ছড়ায়।টার্কির মাথায়,ঝুটিতে ,ঠোঁটের কোণে,চোখের কোণায়পালকবিহীন স্থানেচামড়ায় ,বিভিন্ন আকারের গোটা দেখা দেয় ।এতে টার্কি মৃত্যুর হার  কম।তবে টার্কির শারীরিক অবস্থা, ভাইরাসের তীব্রতা ও ব্যবস্থাপনার  উপর   মৃত্যুর হার কম বা বেশি হতে পারে।খামারে মশার পরিমাণ বৃদ্ধি পেলে পক্স ভাইরাসের  আক্রমণ দ্রুত বৃদ্ধি পায়।

বিস্তারঃ
টার্কি পক্স ভাইরাস রোগ টার্কির যে কোন বয়সে হতে পারে।এ রোগ মশার  মাধ্যমে দ্রুত বিস্তার লাভ করে।কিউলেক্স  ও এডিস   মশার কামড়ে  মেকানিক্যাল ট্রান্সমিশন  ঘটে।

গ্রীষ্মকালীন সময়ে এ ধরনের রোগের প্রাদুর্ভাব বেশি হতে পারে।

অনেক সময় এটি প্রকট আকার ধারণ করে।
টার্কি পক্স ভাইরাস ব্রিডার টার্কির ওভিডাক্ট   এবং পায়ুপথের  চারপাশের চামড়ায়  আক্রমণ করে।পুরুষ টার্কি  আগে আক্রান্ত হলে প্রজননের সময়  স্ত্রী টার্কিতে ছড়িয়ে পড়ে।

 ইনকিউবেশন পিরিয়ড
৪ – ১০ দিন।
লক্ষণ ঃ
তিন ধরনের লক্ষণ
ক) কিউটিনিয়াস ফর্ম,
খ) ডিপথেরিক ফর্ম
গ) কোরাইজালাইক ফর্ম।

কিউটিনিয়াস ফর্মঃ মাথায় ও পালকবিহীন স্থানে বিশেষ করে চামড়ায়,পায়ে , আঙুলে ও পায়ুপথে  গোটা সৃষ্টি করে।

ডিপথেরিক ফর্ম ঃ: — মুখের ভিতরে ও ন্যাজাল চেম্বারে  এ ভাইরাসের সংক্রমণ ঘটে।

কোরাইজালাইক ফর্ম  : — এ জাতীয় লক্ষণে মাথা ফুলে কোরাইজার মত হয়।

চোখে আক্রান্ত হলে টার্কি ঠিকমতো খেতে না পারলে দ্রুত  ওজন হ্রাস পায়।

এতে টার্কির  ওজন হ্রাস ও বৃদ্ধি কমে যায়।

ব্রিডার টার্কির এ রোগে আক্রান্ত হলে ডিমের উৎপাদন কমে যায় এবং ডিমের উর্বরতা  হ্রাস পায়।

রোগের জটিলতা কম থাকলে ২-৩ সপ্তাহ

জটিলতা বেশি থাকলে ৬-৭ সপ্তাহ এমনকি ৮ সপ্তাহ পর্যন্ত থাকতে পারে।

এতে মরটালিটি কম তবে মৃত্যুর হার ৫০% পর্যন্ত হতে পারে।

চিকিৎসাঃ

উপস্থিত ডা  ঠিক করবে কিভাবে চিকিৎসা করতে হবে।

প্রতিরোধঃ
২ ধরনের  টিকা ব্যবহার করা হয়।
ক) ফাউল পক্স ভ্যাকসিন
খ) পিজিওন পক্স ভ্যাকসিন

ফাউল পক্স টিকা

প্রাথমিক অবস্থায় টার্কির  ২ – ৩ মাস বয়সে

ব্রিডার টার্কির ক্ষেত্রে ডিম পাড়া শুরু হওয়ার আগে পূণরায় ভ্যাকসিন করতে হবে।

ডিম পাড়া অবস্থায় প্রতি ৩-৪ মাস অন্তর অন্তর পূণঃ পূণঃ ভ্যাকসিন অবশ্যই করা  লাগতে পারে।

পিজিওন পক্স টিকাঃ
টার্কির যে কোন বয়সে পিজিওন পক্স ভ্যাকসিন করা যাবে।

পিজিওন পক্স ভ্যাকসিন করতে হবে উইং ওয়েব এ।

প্রয়োজন হলে ১ দিন বয়সে  পিজিওন পক্স টিকা দেয়া যায়।।

ব্রিডার টার্কিকে ঠিকমতো ভ্যাকসিন প্রয়োগ করা থাকলে ৮ সপ্তাহ বয়সে পিজিওন পক্স  টিকা দিলে ভালো ইমিউনিটি  তৈরি হয়।।

গ্রোয়িং পিরিয়ডে ও ব্রিডার টার্কিকে অবশ্যই ডিম পাড়াকালীন সময়ে পূণঃ টিকা দেয়া উচিত।

Please follow and like us:

About admin

Check Also

টার্কির রোগ ব্যাধি এবং ভ্যাক্সিন সিডিউল

রোগঃ ১।সালমোনেলোসিস(সালমোনেলা এরিজোনা) সালমোনেলা মুক্ত ব্রিডার থেকে আনতে হবে। ২।এ আই ৩।কলেরাঃ মৃত্য হার ৬০-৯০%,৬ …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Translate »
error: Content is protected !!