Breaking News

জয়েন্ট,পা ও পালক উঠা দেখে রোগ নির্ণয়

হাড়

জয়েন্ট,পা ও পালক দেখে ১১টি রোগ নির্ণয় করা যায় যেমন স্টেফাওলোক্ককোসিস,গাউট,মাইকো[লাজমা,সাল্মোনেলা,ইক্লাই,রিও,করাইজা,মোল্ট্রিং,লাইসিন,মেথিওনিন,ভিটামিন এ,ফলিক এসিডের ঘাটতি,আমাশয়,গিজার্ডে ক্ষত

জয়েন্ট ও পা

মোটা এবং প্রদাহ(necrosis)
স্ট্যাফাইলোকক্কোসিস,ইনফেকশাস সাইনোভাইটিস

আর্টিকোলার গাউট(সাদা চকের মত দেখা যায়)

মাইকোপ্লাজমা সাইনোভিঃ

প্যারালাইসিসের মত হয়,বসে থাকে।চিকিৎসা দিলে ভাল হয়ে যাবে।

স্ট্যাফাইলোকক্কোসিস(জয়েন্ট বিশেষ করে হক জয়েন্ট ফুলে যত,গরম অনূভুত হয়।

সালমোনেলা বা ই কলাই এর জন্য ও হতে পারে।

রিও ভাইরাসঃ

ব্রয়লারে হয়,৭-১৫দিনে বেশি হয়,বাচ্চা ছোট বড় হয় ,মর্টালিটি খুব কম হয়.০-১%।তবে ২-৩% হতে পারে।

ফিমোরাল হেড নেক্রোসিসঃ

ফিমারে পচন ধরে।বসে থাকে।

মুরগির পালক দেখে রোগ নির্ণয়

লেয়ার

১.পাখনার নিচে ভেজা পালক :

করাইজা

২.পালক উঠে যাওয়া:

মোল্টিং

৩.পালকের রং পরিবর্তন

আয়রন,লাইসিন এবং ফলিক এসিড এর ঘাটতি

৪.পালক খাওয়ার অভ্যাস

মেথিওনিনের ঘাটতি

৫.২-১০ সপ্তাহে অল্প পালক

গিজার্ডে ক্ষত.

##পায়ের হলুদ রং পরিবর্তন

আমাশয়,ভিটামিন এ এর ঘাটতি,

Please follow and like us:

About admin

Check Also

বাচ্চা মুরগিতে ১ম সপ্তাহে কেন রোগ কম হয়,২সপ্তাহের দিকে কেন বেশি হয়।

বাচ্চাতে ম্যাটার্নাল এম ডি এ নয়ে আসে যা প্রটেকশন দেয়।আবার ২ সপ্তাহে বা পরের দিকে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Translate »
error: Content is protected !!