খাবার ব্যবস্থাপনা(ব্রয়লার,লেয়ার,সোনালী)

খাবার ব্যবস্থাপনা(কোন বয়সে কেমন খাবার,কতবার খাবার দিবো,বয়স অনুযায়ী খাবারের পুস্টি)

১।ব্রয়লার

ব্রয়লারে ৩ ধরণের খাবার দেয়া হয়।

টাইপ                    কয়দিন           খাবারের সাইজ

স্টাটার/প্রিস্টাটার  ১-১৫দিন        সাইজ  0.৫ মিলি

গ্রোয়ার   ১৬-২৫দিন                সাইজ ২মিলি

ফিনিশার ২৬-৪০দিন               সাইজ   ২.৫-৩মিলি

 

স্টাটার থেকে গ্রোয়ারে,গ্রোয়ার থেকে ফিনিশারে গেলে  ৩-৫দিন মিক্স করে খাওয়াতে হবে,আগের খাবারের সাথে ২০-২৫% নতুন খাবার মিক্স করে বারাতে হবে।এতে খাবার পরিবর্ত্নের জন্য  আমাশয় বা পাতলা পায়খানা হবে না।তবে এই সময় প্রবায়োটিক দিলে ভাল হয়।

ফিনিশার খাবার ৭০% খামারী খাওয়ায় না তবে খাওয়ানো উচিত।এতে খরচ কমবে আর মাংসের স্বাদ ভাল হবে।

(০-১২দিনের খাবারকে  কোন কোম্পানী স্টাটার বলে কেউ প্রিস্টাটার বলে)

স্টাটার/প্রিস্টাটার খাবার ক্রাম্বল(ভাংগা ) হয় আর গ্রোয়ার আর ফিনিশার পিলেট করা হয়।ক্রাম্বল টা পিলেট রুপেই থাকে বাচ্চার সুবিধার জন্য ভেংগে ফেলা হয় যাকে ক্রাম্বল নামে ডাকা হয়।

পাত্রের ৩ভাগের ২ভাগ খাবার দিতে হবে,ভর্তি করে খাবার দেয়া যাবে না।তাছাড়া পাত্র পিট বরাবর উচু করে  খাবার দিতে হবে।এতে খাবার ছিটানো কমে যাবে।

শীত গরম অনুযায়ী খাবার দেয়ার ধরণ ও ভিন্ন হয়।

শীতে সব খাবার পাত্রে খাবার রেখে দেয়া ভাল।

গরমে দুপুরে বিশেষ করে গরমের সময় খাবার বন্ধ রাখা ভাল।

১ম ২দিন পেপারে খাবার ছিটিয়ে দিতে হবে।তাছাড়া ৮-১২ স্তর পেপার দিতে হবে.৪-৫ঘ ন্টা পর পর উপরের পেপার সরিয়ে ফেলতে হবে।

কত সপ্তাহে কত ব্যাগ খাবার খাবে

১ সপ্তাহে ৩ব্যাগ

২সপ্তাহে ৩গুন ২+৩ঃ৯ব্যাগ

৩ সপাহে ৯গুন২+৩ঃ২১ব্যাগ

৪ সপ্তাহে ২১গুন২+৩ঃ৪৫

৫(৩৫দিনে) সপ্তাহে   ৫৫-৬০ ব্যাগ

২।লেয়ার

লেয়ারে ৪-৬ ধরণের খাবার দেয়া হয়

প্রিস্টাটার         ১-৫ সপ্তাহ

স্টাটার           ৬-১০ সপ্তাহ

গ্রোয়ার        ১১-১৭

প্রিলেয়ার     ১৮-২১ সপ্তাহ

লেয়ার লেয়ার /লেয়ার ১ঃ  ২২-৫৫ সপ্তাহ

লেয়ার ২         ৫৬-বিক্রির আগ পর্যন্ত

লেয়ার ও সোনালীর  ক্ষেত্রে ৫-৭দিন মিক্স করে খাওয়াতে হবে ।

প্রিলেয়ার না থাকলে গ্রোয়ার ও লেয়ার ১ মিক্স করে দিতে হবে।

একেক কোম্পানীর একেক নিয়ম তবে সবই কাছাকাছি।

কোয়ালিটি এবং নারিশ  কোম্পানীর প্রিস্টাটার এবং প্রিলেয়ার  খাবার আছে তবে সব কোম্পানীর নাই।

লেয়ার ২ খাবার ও ৭০% খামারী খাওয়ায় না।তবে খাওয়ানো উচিত।কারণ এই বয়সে ক্যালসিয়ামের ঘাটতি হয় আবার প্রোটিন এবং ফ্যাট বেশি থাকে তাই লেয়ার ২কে সেইভাবেই বানানো হয় যাতে চাহিদা পূরণ করতে পারে।

 

লেয়ারের ম্যাশ খাবারই অধিকাংশ  কোম্পানী তৈরি করে তবে কিছু কোম্পানী  ( কোয়ালিটি ,নারিশ)ক্রাম্বল খাবার তৈরি করে বিশেষ করে প্রিস্টাটার ,স্টাটার এবং গ্রোয়ার খাবার।কয়েক টা কোম্পানী এ সি আই,প্যারাগন এবং আফতাব এরা লেয়ার ১  পিলেট খাবারও তৈরি করে।

।সোনালী

স্টাটার ১-৩৫/৪০দিন

গ্রোয়ার  ৩৫/৪০-৫৫দিন

ফিনিশার ৫৫-৭০দিন

অনেকে ফিনিশার খাওয়ায় না।

খাবার কতবার দেয়া উচিত;

১মদিন ৩-৪ ঘন্টা পর পর দেয়া ভাল

২-৩দিন ৬ ঘন্টা পর পর

৪-১৪দিন দিনে  ৩-৪ বার

৩-৮ সপ্তাহ দিনে ৩ বার।

৯-১৮ সপ্তাহ দিনে ২বার

সব সময় যদি পাত্রে খাবার থাকে এতে খাবারের মান নস্ট হয়।খাবারের রুচি কমে যায়।বেচে বেচে বড় ভুট্রা খায়।খাবারের গুড়া মানে প্রোটিন ও ভিটামিন মিনারেলস খায় না ।এতে মুরগি ছোট বড় হয়।

সব চেড়ে বড় যে সমস্যা তা হলো ক্রপ এবং ইন্টেস্টাইনের বৃদ্ধি কম হয়।

বৃদ্ধি কম হলে পরবর্তীতে বিশেষ করে ১৮ সপ্তাহে খাবার কম খাবে,ওজন কম খাবে,প্রডাকশন ভাল হবে না।

খাবার অফ দিতে দিলে একবারে বেশি খাবার খায় এতে ইন্টেস্টাইনের এবং ক্রপের বৃদ্ধি ভাল হয় এতে বেশি খাবার খেতে পারে ।

শীতে ও গরমে খাবারে ফর্মুলা ভিন্ন হয়।

শীতে এনার্জি বেশি দিতে হবে আর গরমে প্রোটিন ,ভিটামিন মিনারেলস এবং টক্সিন বাইন্ডার বাড়িয়ে দিতে হয়।

নোটঃ

সাদা লেয়ারে এনার্জি (৫০-১০০ ক্যালরি/কেজি) বেশি লাগে আর প্রোটিন ১% কম লাগে।লাল লেয়ারে ঠিক তার উল্টো ।শুধু লেয়িং পিরিয়ডে এই সিস্টেম।বাকি সময় একই ফর্মুলা

 

Please follow and like us:

About admin

Check Also

শেড জীবাণুমুক্তকরণ পদ্ধতি

.শেড জীবাণুমুক্তকরণ #শেডের উপর হতে নিচ পর্যন্ত পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে এবং মেঝে,সিলিং,নেট,দরজা,ফ্যান,জানালা,পর্দা ইত্তাদি. #ঘরের ...

Translate »
error: Content is protected !!