Breaking News

ব্রয়লারের ইনক্লোশনবডি হেপাটাইটিস(আই বি এইচ):বিস্তারিত

ব্রয়লারের ইনক্লোশনবডি হেপাটাইটিস(আই বি এইচ):বিস্তারিত

এপিডিমিওলজিঃ

আমাদের দেশে ২০২০ সালে এবং ২০২১ সালে ব্রয়লার খামারীদের নতুনভাবে চিন্তায় এবং লসের কারণ হয়ে দাড়িয়েছে এই আই বি এইচ।তাছাড়া এটি ব্রিডার থেকে আসার সম্বাবনা থাকায় সমস্যা আরো বেড়ে গেছে।এটি এডিনো ভাইরাস জনিত একিউট রোগ,মূলত ব্রয়লারে হয়,১৯৬৩ সালে আমেরিকা এবং ১৯৯০ সালে পাকিস্তানের আংগারা জেলায় ১ম দেখা যায়।পাকিস্থান থেকে বর্ডার দিয়ে ভারতে চলে আসে ১৯৯৫ সালে।তারপর বাংলাদেশে।ইদানিং ব্যাপক হারে দেখা যাচ্ছে।কোন কোন জেলায় ও দেশে এটি এন্ডেমিক আকারে দেখা যায়।

পাকিস্থানী ডাক্তার কোরেশী(Qureshi) ১৯৯০ সালে অটোজেনাস টিকা তৈরি করেন এবং ভারত ১৯৯৫-২০০৫ সাল পর্যন্ত ব্যবহার করেছে।ইন্ডিয়ান ডাক্তার দেবী গৌদা(Deve Gowda) একে আই বি এইচ নাম দেন,এটা লিচি ডিজিজ  ও আংগারা ডিজিজ নামে পরিচিত।আমেরিকা ও ব্রিটেনে  এর প্রাদুর্ভাব আছে।

এটি হঠাত(একিউট) করে দেখা দেয় এবং এনিমিয়া,হেপাটাইটিস হয়,মাংসে রক্ত ক্ষরণ হয়সব বয়সের মুরগিতে হয় কিন্তু ৩-৭ সপ্তাহে বেশি হয়,২দিন থেকে ২০ সপ্তাহেও হয়ে থাকে।৩ সপ্তাহের কম বয়স হলে মর্টালিটি বেশি হয়,সিংগেল হলে ১০-৩০% আর মিক্স ইনফেকশন/ ইমোনোসাপ্রেশন হলে ৮০% মারা যেতে পারে।মাইকোক্সিন ২০ পিপিএমের বেশী  থাকলে বেশি হয়।আপেক্ষিক আর্দ্রতা ৬৫% বেশী হলে হয়।ইনফেকশাস এনিমিয়া,আই বি ডি ও ভাইরুলেন্ট এডেনো ভাইরাসের আক্রমনের পরে হবার প্রবনঁতা বেশি থাকে।এটি অনেক সময় চিকেন ইনফেকশাস এনেমিয়ার সাথে হয়.বসন্তকালে বেশি হয়।(জুন-সেপ্টেম্বর) যখন নতুন ভুট্রা উৎপাদিত হয়।মর্টালিটি ১০-২০% হয় যদি সাথে আমাশয় এবং গাম্বোরু থাকে।অধিকাংশ সময় মিক্স ইনফেকশন হয়।

এটাকে 3day diseases বলা হয় কারন ৩দিন বেশি মারা যায়।১০-৩০দিন পর্যন্ত  বেশি হয়৩-৪ দিন মারা যায় যা ৬-৭ দিনে স্বাভাবিক হয়ে যায় কোন সময় ১০-১৫ দিন থাকে যদি মিক্স ইনফেকশন হয়।

এটি ডি এন এ  ভাইরাস,ডায়ামিটার ৭০-৮০ ন্যানোমিটার৭-৮টি স্ট্রেইন আছে এবং স্ট্রেইন গুলো পরিবর্তিত হয়ে যায় তাই টিকা ভাল কাজ করে না।ইনকিউবেশন পিরিয়ড ৯-১৫ দিন.এর ৬টা স্পিসিস এবং ১৪টি সেরোটাইপ আছে।৪ এবং ৮ সেরোটাইপ  হলো হাইপ্যা্থোজেনিক।

পরিবেশের অনেক ফ্যাক্টর রেজিস্টেন্ট।এটি ইথার,পি এইচ,উচ্চ তাপমাত্র ও  ক্লোরোফর্মে রেজিস্টেন্ট।ফরমাল্ডিহাইড ও আয়োডাইড এদের উপর ভাল কাজ করে।

কিভাবে ছড়ায়ঃ

ট্রাকিয়াল ও নেজাল মিউকোসা,বিষ্টার মাধ্যমে ছড়ায়।মেকানিকেল রোট দিয়ে ছড়ায়।

মানুষের মাধ্যমে।ফিড পরিবহন।ভার্টিকেল ( ডিমের মাধ্যমে) এবং হরিজন্টাল দুই ভাবে হতে পারে।আক্রান্ত ব্রয়লার কয়েক সপ্তাহ কেরিয়ার হিসেবে কাজ করে।

লক্ষণঃ

হলদেটে ডায়রিয়া করে  মাঝে মাঝে সবুজ পায়খানা করে।হঠাত  লাফ দিয়ে ২ ইঞ্চি উপরে উঠে  মারা যায়।পালক উস্কোখোস্কো।মাটির উপর ভর করে এবং গলা লম্বা  করে বসে থাকে এবং মারা যাবার আগে কান্না করে।মুখ,কম্ব,ওয়াটল,ফ্যাকাশে হয়ে যায় এবং কখনো চোখে রক্ত ক্ষরণ হয়হলুদ মিউকয়েড পায়খানা হয় এবং মলদারে পায়খানা লেগে থাকে।স্টারনাম,বুকের মাংস ফ্যাকাশে হয়ে যায়।হেপাটাইটিস হাইড্রোপেরিকারডিয়াম হঠাত শুরু হয় দিনে ৩-৫% মারা যায়,মর্বিডিটি হয় ১০-৩০%।এক সাথে জমা হয়,হলুদ মিউক্যেড পায়খানা করে।মর্টালিটি নির্ভর করে ভাইরাসের প্যাথোজেনিসিটির উপর,ইমোনিটি ও অন্য রোগের উপর।

পোস্ট মর্টেমঃ

লিভার বড়,সাদা বা হলুদ হয়ে যায়,লিভারের কিনারা ধারালো মানে পাতলা হয়ে যায়(liver pale,yellow,icteric,friable,mottled with petechlae and echimoses  and enlarged with hemorrhage).Anemia & dehydration develop secondary to hemorrhagic enteritis.Ecchymosses & striated haemorrhages skeletal muscles are observed.রক্ত পাতলা হয়ে যায়।বার্সা এবং স্পিন ছোট হয়ে যায়।

লিভার অনেক গুলো ভাগে বিভক্ত হয় এবং মটলেড বা স্টাইয়াটেড(mottled or Striated)কিডনি বড় ও পেল হয়ে যায়।(kidney yellow,enlarged and hemorrhage

বুকে,পায়ে,অন্ত্রে ও মাংসে  প্রচুর রক্ত ক্ষরন হয়।(yellowish tinged s/c  and peritoneal fat deposition)আই বি এইচ

পেরিকার্ডিয়াল ফ্লুইড বেড়ে যায় মানে হাইড্রোপেরিকার্ডিয়াম হয়( হার্টের চারদিকে পানি জমা হয়) এবং রক্ত পাতলা হয়।

বার্সা ও স্পীলন ছোট হয়ে যায়।

প্রতিরোধঃ

বায়োসিকিউরিটি উন্নত করতে হবে.সুষম খাবার দিতে হবে.

পুরাতন লিটার ব্যবহার করা যাবে না।লিটার যাতে না ভিজে বিশেষ করে শীতকালে।

ভুট্রার পরিবর্তে মিলেট দিতে হবে,প্রোটিন কমাতে হবে।গম বা মিলেট বা চাল দিতে হবে,৩৬ ঘন্টা খাবার বন্ধ রাখতে হবে।

১৫দিন ফার্ম রেস্টে রাখতে হবে।আয়োডিন জাতীয় জীবাণূ নাশক দিয়ে স্প্রে করতে হবে ।

ইমো্নোসাপ্রেশন হয় এমন রোগ যাতে না হয় সে ব্যবস্থা করতে হবে যেমন  আই বি ডি,মাইকোপ্লাজমোসিস,চিকেন এনিমিয়া ভাইরাস,সি আর ডি ও আমাশয়।টিকা ১-২ দিনে তবে টিকা ভাল কাজ করেনা।এটি সেলফ লিমিটিং রোগ মানে ৬-৭ দিনে ভাল হয়ে যায়।স্প্রে করতে হবে.

টিকাঃ

২য় দিন

৭ম দিন

বাংলাদেশে ব্যবহার হয় না

অটোজেনাস ভ্যক্সিনঃ

আক্রাক্ত ব্রয়লারের লিভার ৮০গ্রাম

জেন্টামাইসিন ৬০ এম এল

নরমাল স্যালাইন  ১৮০ এম এল,ফরমালিন ২এম এল

সব গুলো মিক্স করে  ৫ মিনিট গ্রাইন্ডিং করতে হবে

পরে ফরমালিন এড করে আবার গ্রাইন্ডিং করতে হবে।

তারপর স্যালাইন যোগ করে ১মিনিট মিক্স করতে হবে।।

পরে ১-২ফোটা ফরমালিন  যোগ করে এতে জেন্টামাইসিন দিয়ে ১মিনিট মিক্স করতে হবে।

৫-৬ডিগ্রি তাপমাত্রায় ১২ ঘন্টা ফ্রিজে রাখার পর ০.২ মিলি করে মাংসে ইঞ্জেকশন দিতে হবে।

গাম্বোরু ও আই বি  এইচ এর মধ্যে পার্থক্য;

গাম্বোরু                আই বি এইচ

হার্ট নরমাল         হার্টের চারদিকে পানি থাকে

লিভার নরমাল    লিভারের কিনারা ধারালো থাকে

সাদা পায়খানা      সবুজ বা হলুদ পায়খানা

কি কি ভাবে আই বি এইচ রোগ নির্ণয় করা যায়

ক্লিনিকেল লক্ষণ

পোস্ট মর্টেম

এলাইজা

আর টি পি সি আর

হিস্টোপ্যাথোলজিকেল টেস্ট

রক্ত পরীক্ষা( টোটাক ইরাইথোসাইট কাউন্ট)

চিকিৎসাঃ

চিকিৎসা হবে উপস্থিত ডাক্তার যেভাবে বলবে সেভাবে নিচে ধারনা দেয়া হলো

তাছাড়া চাল ভাংগা বা ভুট্রা ভাংগা  দিতে হবে,খাবার ১২-৩৬ ঘন্টা বন্ধ রাখতে হবে

স্টাটার খাবার বাদ দিয়ে ফিনিশার খাবার দিতে হবে।

সালফার জাতীয় এন্টিবায়োটিক দেয়া যাবে না।

টক্সল ১মিলি ১লিটারে ৫দিন

ভিটামিন সি ১গ্রাম ২লিটারে ৩দিন পরের ৩দিন ১গ্রাম ৩লিটারে ১বেলা

মাল্টিভিটামিন।

গ্লোকোজ ২গ্রাম ১লিটারে ৩দিন পরের ২দিন ১গ্রাম ১লিটারে।

লিভারটনিক ও কিডনিটনিক।

ইমোনোমডোলেটর

ভিটামিন কে

গুড়

ক্যালসিয়াম

এমাইনো আসিড

পটাশিয়াম নাইট্রেট ও এমোনিয়াম ক্লোরাইড দিতে হবে।

পর্দা,ফ্যান,সেডের ভিতর ১০% ফরমালিন দিয়ে স্প্রে করতে হবে।

Please follow and like us:

About admin

Check Also

বাচ্চা মুরগিতে ১ম সপ্তাহে কেন রোগ কম হয়,২সপ্তাহের দিকে কেন বেশি হয়।

বাচ্চাতে ম্যাটার্নাল এম ডি এ নয়ে আসে যা প্রটেকশন দেয়।আবার ২ সপ্তাহে বা পরের দিকে …

Translate »
error: Content is protected !!