Breaking News
আইভার মেক্টিন
আইভার মেক্টিন

আইভারমেকটিন এর ব্যবহার এবং উহার সতর্কতা ঃ

আইভারমেকটিন এর ব্যবহার এবং উহার সতর্কতা ঃ

১। আইভারমেকটিন প্রানী চিকিতসায় একটি অনন্য মেডিসিন ।
২। আইভারমেকটিন বহিরপরজীবী , কোন কোন অন্তরপরজীবি দূর করায় বহুল ব্যবহৃত ওষুধ ।

৩। উহার মাত্রা গবাদি প্রানীর জন্য ৫০ কেজির জন্য এক মিলি এবং কুকুর এর জন্য ৩০ কেজিতে ১ মিলি , বিড়াল এর জন্য ৫ কেজিতে ০.৩ মিলি এবং খরঘোষ এর জন্য ৫ কেজিতে ০.১০ মিলি মাত্র ।

৪। কোন ইয়ং প্রানী ৩ মাস বয়সের পূর্বে আইভারমেক্টিন নিষিদ্ধ , অসুস্থ্য দূর্বল প্রানীর বেলায় ও আইভারমেক্টিন দেয়া যায় না ।

৫। আইভারমেক্টিন অতি মাত্রায় বা অপ্রাপ্ত প্রানীদের প্রয়োগ করা হলে প্যারালাইসিস , অজ্ঞ্যান হয়ে মারা যেতে দেখা যায় ।

৬। আইভারমেকটিন চামড়া বা মাংশে পুশ করা হলে চামড়া এবং মাংশে ক্ষত হয় ।তাই উহা অনশ্যই চামড়ার নিচে চর্বিতে প্রয়োগ করতে হয় ।

৭। আইভার মেকটি পোর অন বেশি দিলে ক্ষত হয় তাই পোর অন হ্যান্ড গ্লোবস পড়ে চামড়ার উপর ছড়িয়ে দিতে হয় ।

অভিজ্ঞ ভেট এর পরামর্শ ছাড়া আইভারমেক্টিন ব্যবহার না করাই উত্তম ।

বিড়ালের চর্ম রোগ বেশির ভাগ ক্ষেত্রে রিং ওয়ার্ম থেকে হয় সেই ক্ষেত্রে আইভার মেকটিন অপ্রয়োজনীয় ।

শুধ মাত্র মাইট এবং ফ্লি দূর করতেই আইভারমেকটিন এর ব্যবহার করাই উত্যম ।

ক্রিমি নাশক হিসাবে আইভারমেকটিন বিকল্প হিসাবে পাইরেনটেল জাতীয় ওষুধ ই সর্বোত্তম.

লেখকঃvet Azmat ali

Please follow and like us:

About admin

Check Also

কুকুর নিয়ে কথা ঃ

কুকুর নিয়ে কথা ঃ কুকুর নিয়ে কার না কত কৌতুহল, কুকুর কেন এত প্রভুভক্ত,?? এত …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Translate »
error: Content is protected !!