Breaking News

ডেইরী ও বীফ ফার্মিংয়ের জন্য আসছে পরিপূর্ণ সফটওয়্যার।

ডেইরী ও বীফ ফার্মিংয়ের জন্য আসছে পরিপূর্ণ সফটওয়্যার।

বাংলাদেশ ডেইরী ফার্মারস এসোসিয়েশনের (BDFA) উদ্যোগে তৈরী হতে যাচ্ছে ডেইরী ও বীফ ফার্মারদের জন্য পরিপূর্ণ সফটওয়্যার।

বড় বড় কোম্পানি তাদের বড় বড় খামার পরিচালনার জন্য যে ধরনের সফটওয়্যার ব্যবহার করে থাকে সেগুলো একদিকে যেমন জটিল ও ব্যয়বহুল, অন্যদিকে ঐসব সফটওয়্যার পরিচালনার জন্য তাদের আলাদা আই.টি. ডিপার্টমেন্ট ও লোকবল থাকে। আমরা যারা প্রান্তিক ও ছোট খামারী- আমাদের জন্য দরকার এমন সফটওয়্যার- যেটি দামে সস্তা, সহজে ব্যবহার উপযোগী এবং অতিরিক্ত লোকের দরকার তো নেই ই বরং হিসাব রাখার জন্য অতিরিক্ত কর্মঘন্টা কমিয়ে দিবে।

এই লক্ষ্যকে সামনে রেখে আমরা মডেল হিসেবে বেছে নিয়েছি Malik Omar ভাইয়ের খামারটিকে। শ্রদ্ধেয় মালিক ওমর ভাই দীর্ঘ ২৬ বছর যাবত সফলতার সাথে খামার পরিচালনা করে আসছেন। শুরু থেকেই তিনি সমস্ত রেকর্ড রেখে চলেছেন। খামারের সমস্ত তথ্যাদি সংরক্ষণের জন্য তিনি দীর্ঘ দিন ধরে বিভিন্ন পদ্ধতির উপর কাজ করে বর্তমানে সবচেয়ে সহজ উপায়ে তথ্যাদি ও হিসাব-নিকাশ সংরক্ষণ করছেন। উনার এই ম্যানুয়াল সিস্টেমটিকেই ডিজিটালাইজেশন করে সফটওয়্যারটির মূল ব্যাকবোন (SDLC) তৈরী হবে। সাথে যুক্ত হবে অভিজ্ঞ খামারীদের বিভিন্ন সাজেশন। নতুনরা যাতে সফটওয়্যার থেকেই দিক নির্দেশনা নিয়ে খামার পরিচালনা করতে পারে সেই দিকটাও নজরে রাখা হচ্ছে।

সফটওয়্যারটি তৈরী হয়ে গেলে এটি সংশ্লিষ্ট সফটওয়্যার কোম্পানী থেকে সুলভমূল্যে কেনা যাবে। তবে সরকারী পৃষ্ঠপোষকতা পাওয়ার চেষ্টা চলছে- পেয়ে গেলে বাংলাদেশ ডেইরী ফার্মারস এসোসিয়েশন (BDFA) এর মেম্বারদের জন্য ফ্রি ও হতে পারে। আমরা যারা এটি তৈরী ও উন্নয়নে কাজ করছি, আমাদের উদ্দেশ্য ডেইরী ও বীফ শিল্পের উন্নয়নে কাজ করা- সম্পূর্ণ স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে ও খামারীদের কল্যান করার মানসে। এখানে আমাদের কোন আর্থিক লাভ নেই।

সফটওয়্যার টি তে যা যা থাকবেঃ-

১. বাংলা ও ইংরেজী ইন্টারফেস- অর্থাৎ ২টি ভাষাতেই ব্যবহার করা যাবে।

২. ইনভেন্টরি (মজুদ পন্যের হিসাব) ব্যবস্থাপনা অর্থাৎ খাদ্য ও অন্যান্য উপাদান কি পরিমানে আছে তার হিসাব।

৩. হিসাব রক্ষণ (আয়-ব্যয়ের হিসাব)

৪. গরু-বাছুরের হিসাব-

বাছুর, বাড়ন্ত বকনা, পূর্নবয়স্ক বকনা, গর্ভবতী বকনা, বাড়ন্ত ও পূর্ণবয়স্ক ষাঁড়, গর্ভবতী গাভী,, দুধ দেয়া গাভী ইত্যাদি ভাগে ভাগ করে সকল গরুর হিসাব।

৫. গরু নথিভুক্ত করণঃ (জন্ম নেয়া বাচ্চা ও ক্রয় উভয়ক্ষেত্রে)-

প্রত্যেক গরুর চারপাশের ৪টি ছবি সহ নাম্বার প্রদান, জন্ম তারিখ এবং পরিপূর্ণ পেডিগ্রীর (বাবা, মা, দাদা, দাদী, নানা, নানী ইত্যাদি) তথ্য সংরক্ষণ, কেনা হলে ক্রয়ের তারিখ, মূল্য ইত্যাদি।

৬. প্রতিদিনের দুধের হিসাব সংরক্ষণ ও প্রতি ১৫ দিনে দুধের গড় হতে সয়ংক্রিয় ভাবে খাদ্য বা রেশন নির্ধারন। সেই সাথে থাকবে রেশন ফর্মুলেসন বা রেসিপি।

৭. প্রতিটি গরুর রোগ ও তার চিকিৎসার বর্ণনা সংরক্ষন।

৮. ডিওয়ার্মিং বা ক্রিমির ঔষধ খাওয়ানোর শিডিউল।

৯. ভ্যাক্সিন দেয়ার শিডিউল।

১০. বীফ ফার্মিংয়ের ক্ষেত্রে দৈনিক ওজনবৃদ্ধির হিসাব।

১১. নোটিফিকেশনঃ সফটওয়্যারটির সবচেয়ে বড় সুবিধার দিকটি হবে প্রত্যেকটি কাজের জন্য প্রতিদিন সকালে “দৈনিক নোটিফিকেশন” আসবে। ফলে খামারীকে আজকের কোন গরুর কি কাজ তা মুখস্ত রাখতে হবে না। শুধু নোটিফিকেশন অনুযায়ী দিনের সবগুলো কাজ করতে হবে এবং সকল তথ্য সফটওয়্যারে ঢুকাতে হবে (Input). যেসব বিষয় নোটিফিকেশনে আসবে সেগুলো হলঃ-

১. ডিওয়ার্মিং ও ভ্যাক্সিনেশনের নোটিফিকেশন।

২. বাচ্চা জন্মের ৪৫ দিন পর থেকে হীট খোজার নোটিফিকেশন।

৩. হীট পেলে এ.আই. করার পর ১৮, ৩৮ ও ৫৬ দিনের পর পুনরায় হীট খোজার নোটিফিকাশন ও ইনব্রিডিং নোটিফিকেশন।
ইনব্রিডিং নোটিফিকেশন হল- একটি বকনা বা গাভীর বাবা, দাদা, নানা, পরদাদা, পরনানা ইত্যাদি সিমেন স্ট্রয়ের নম্বর- যাতে করে সিমেন দেয়ার সময় এগুলো বাদ দিয়ে দেয়া যায়।

৪. এ.আই. করার ৬০ দিন পার হলে গর্ভ চেক করার (অভিজ্ঞ ভেট দ্বারা) নোটিফিকেশন।

৫. গাভীর ক্ষেত্রে গর্ভ কনফার্ম হলে সাড়ে ছয় মাস থেকে ড্রাই করার (দুধ বন্ধ) নোটিফিকেশন যাতে ৭ মাসের মাথায় ড্রাই করা সহজ হয়।

৬. বাচ্চা হওয়ার ১৫দিন আগে থেকে ডেলিভারী নোটিফিকেশন।

৭. সব ধরনের গরুর বয়স, গর্ভ ও দুধ অনুযায়ী খাদ্য সরবরাহের নোটিফিকেশন।

৮. নতুন জন্মানো বাচ্চার ডিসবাডিং (মুন্ডি করা) ও ডিওয়ার্মিং নোটিফিকেশন।

৯. প্রত্যেক গরুর ওজন মাপার নোটিফিকেশন।

এছাড়াও থাকবে খামারী বান্ধব অনেক ফিচার।

সফটওয়্যারটি হবে অনলাইন ভিত্তিক। ফলে আপনার খামারের কম্পিউটার নষ্ট হয়ে গেলেও আপনার তথ্যাদি সুরক্ষিত থাকবে। আর যেকোন জায়গা থেকে স্মার্টফোনেও তা ব্যবহার করা যাবে। আপনি খামার থেকে দূরে থাকলেও মোবাইলের স্ক্রিনে নোটিফিকেশন গুলো চেক করে কর্মচারীদের দিক নির্দেশনা দিতে পারবেন।

অতএব, মনে মনে প্রস্তুতি নিন- সফটওয়্যার ব্যবহার করতে হবে। তাহলে হিসাব- নিকাশের ঝামেলা যেমন সহজ হবে, আর কখনোই হীটে আসার তারিখ, ডিওয়ার্মিং ও ভ্যাক্সিনেশনের তারিখ, ড্রাই করার তারিখ সহ গুরুত্বপূর্ণ কিছুই মিস হবে না।

Mohammed Imran Hossain Shah Emran Shah Malik Omar Al-Amin Talukder Rubel Shahedul Islam Sayeed Kawsar Shah Fahim Bin Jahangir

Please follow and like us:

About admin

Check Also

দুধের ল্যাক্টোফেরিন

ল্যাক্টোফেরিন হলো একটি আয়রন সমৃদ্ধ প্রোটিন। সর্বপ্রথম ১৯৩৯ সালে গরুর দুধে এই প্রোটিনের সন্ধান মেলে। …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Translate »
error: Content is protected !!